Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | এবারের নির্বাচনে সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী সানসিলা

এবারের নির্বাচনে সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী সানসিলা

sansila01-20181204142937

নিউজ ডেক্স : দীর্ঘ ২২ বছর পর শেরপুর-১ (সদর) আসনে ধানের শীষ প্রতীকে ভোট দেয়ার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে বিএনপি নেতাকর্মীদের। এতে দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। এই আসনে বিএনপির প্রার্থী হয়েছেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. হযরত আলীর মেয়ে ডা. সানসিলা জেবরিন (২৭)। পেশায় চিকিৎসক সানসিলা জেবরিন বিএনপি নেতাকর্মীদের কাছে ‘প্রিয়াঙ্কা’ নামেই পরিচতি।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জেলার তিনটি সংসদীয় আসনের মধ্যে এই আসনে সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী সানসিলা জেবরিন। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের পর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. হযরত আলীসহ বিএনপির অন্য তিন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হলেও টিকে রয়েছেন হযরত আলীর মেয়ে সানসিলা জেবরিন।

রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ের তথ্য মতে, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হযরত আলী বাংলাদেশ ব্যাংকের সিআইবি প্রতিবেদনে ঋণ খেলাপী এবং অপর দুই প্রার্থী শফিকুল ইসলাম মাসুদ ও ফজলুল কাদের দলীয় মনোনয়ন না থাকায় তাদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে বাতিল হয়ে যায়।

জেলা বিএনপি নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, জোটের রাজনীতির স্বার্থে বিগত চারটি জাতীয় নির্বাচনে শেরপুর-১ (সদর) আসনটি জামায়াতকে ছেড়ে দেয়া হলেও জয়ের মুখ দেখেনি জামায়াত। যে কারণে ‘ধানের শীষ’ প্রতীকে গত ২২ বছরে জাতীয় নির্বাচনে ভোট দেয়া হয়নি বিএনপি সমর্থকদের। কিন্তু জামায়াত নেতা কামারুজ্জামানের মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসি কার্যকরের পর সদর আসনে নতুন করে সাংগঠনিক কার্যক্রম শুরু করে বিএনপি। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. হযরত আলী সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার করলেও ঋণ খেলাপি থাকায় তার প্রার্থিতা বাতিল হয়ে যায়।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থী চার বারের এমপি হুইপ আতিউর রহমান আতিকের বিপক্ষে লড়বেন হযরত আলীর মেয়ে সানসিলা জেবরিন।

সানসিলা জেবরিন পেশায় চিকিৎসক। তিনি রাজধানীর ধানমন্ডিতে আনোয়ার খান মডার্ন মেডিক্যাল কলেজে মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের প্রভাষকের দায়িত্ব পালন করছেন।

শেরপুর-১ (সদর) আসনে প্রার্থিতার বিষয়ে ডা. সানসিলা জেবরিন বলেন, দীর্ঘ সময় পর এই আসনে বিএনপি থেকে প্রার্থী দেয়া হয়েছে। এটা অনেক আনন্দের ব্যাপার। এছাড়া এই আসনে ধানের শীষের জনপ্রিয়তা অনেক বেশি।

তিনি আরও বলেন, এই আসনে আওয়ামী লীগের একজন হেভিওয়েট প্রার্থী রয়েছেন। উনি শ্রদ্ধার একজন মানুষ, উনার কাছে শেখার অনেক কিছু আছে। নিজেকে অনেক ‘লাকি’ মনে করছি, কারণ সর্বকনিষ্ঠ একজন প্রার্থী হিসেবে উনার বিপক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবো। আমি মনে করি রাজনীতিতে হারজিত থাকবেই। যদি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়, ধানের শীষের জয় হবেই ইনশাআল্লাহ।

ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে জয়ের লক্ষে ইতিমধ্যে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছেন বিএনপির নতুন মুখ সানসিলা জেবরিন। সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী হিসেবে তিনি শেরপুর-১ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগের চারবারের এমপি হুইপ আতিউর রহমান আতিক, জাতীয় পার্টির ইলিয়াস উদ্দিন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের জহির রায়হান, ইসলামী আন্দেলনের মতিউর রহমান, কমিউনিস্ট পার্টির আফিল শেখের বিপক্ষে নির্বাচনে লড়বেন।

এ ব্যাপারে জেলা বিএনপির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য ও জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাহবুবুল আলম রকীব বলেন, সানসিলা জেবরিন এখন আমাদের আকাঙ্ক্ষার প্রতীক। বিএনপি নেতাকর্মীরা সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে তার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে। সানসিলা কনিষ্ঠ প্রার্থী এটা কোনো বিষয় নয়, সাধারণ ভোটাররা ধানের শীষে ভোট দিয়ে বিএনপিকে বিজয়ী করবে। মাঠপর্যায়েও আমরা তাকে নিয়ে ভালো সাড়া পাচ্ছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*