Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | সাতকানিয়ায় মোটরসাইকেল আরোহী তিন বন্ধু ডাকাতির শিকার

সাতকানিয়ায় মোটরসাইকেল আরোহী তিন বন্ধু ডাকাতির শিকার

নিউজ ডেক্স : সাতকানিয়ায় রাতের আঁধারে মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এসময় ডাকাত দল মোটরসাইকেল আরোহী তিন বন্ধুর কাছ থেকে নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়েছে।

ডাকাতির ঘটনার প্রায় তিন ঘণ্টা পরে সন্দেহজনক এক ব্যক্তিকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে স্থানীয় জনতা। গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তির নাম শওকত ওসমান প্রকাশ লিটন (৩০)।

জানা যায়, ডাকাতের হামলায় ৪ জন আহত হয়েছে। গতকাল সোমবার রাত ১২টার দিকে কেরানীহাট-গুনাগরি সড়কের চুড়ামনির কাঁঠালতলে ডাকাতির ঘটনা ঘটে এবং রাত ৩টায় চুড়ামনি পশ্চিমের দোকান এলাকায় সন্দেহজনক এক ডাকাতকে আটক করে জনতা গণপিটুনি দেয়। গ্রেপ্তারকৃত শওকত ওসমান লিটন কক্সবাজারের চকরিয়ার খৈয়ারবিল এলাকার জসীম উদ্দিনের পুত্র।

ডাকাতির শিকার মোটরসাইকেল আরোহী দক্ষিণ কাঞ্চনা গুড়গুরির তৌহিদুল ইসলাম বলেন, “আমাদের একই এলাকার মো. মারুফ ও ছনখোলার সাজ্জাত হোসেন সাকিলসহ আমরা তিন বন্ধু মিলে মোটরসাইকেল যোগে ফুলতলা বাজার থেকে ছনখোলায় যাচ্ছিলাম। চুড়ামনির কাঁঠালতল এলাকায় পৌঁছার পর একদল ডাকাত অস্ত্র ও দা নিয়ে সড়কের উপর দাঁড়িয়ে আমাদের মোটরসাইকেল থামায়। এরপর আমরা তিন বন্ধুকে মারধর করে সাথে থাকা নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। পরে আমাদের একপাশে বেঁধে রাখে। এসময় আমাদের চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে ডাকাতরা পালিয়ে যায়। পরে রাত তিনটার দিকে স্থানীয় জনতা চুড়ামনি পশ্চিমের দোকান এলাকা থেকে সন্দেহজনক এক ডাকাতকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে।”

চুডামনি এলাকার বাসিন্দা মো. আমির হোসেন বলেন, “চুডামনি কাঁঠালতলে মোটরসাইকেল আরোহীদের থামিয়ে ডাকাতির বিষয়টি এক ব্যাটারিরিক্শা চালক গিয়ে আমাদের জানায়। তখন আমরা এলাকার লোকজনকে ডাকাডাকি করে ঘটনাস্থলে যাই। এসময় ডাকাতরা সেখান থেকে পাহাড়ের দিকে চলে যায়। এলাকার লোকজন ডাকাতির শিকার তিন বন্ধুকে বেঁধে রাখা অবস্থা থেকে উদ্ধার করে। পরে স্থানীয় লোকজন কয়েক ভাগে বিভক্ত হয়ে পালিয়ে যাওয়া ডাকাতদের খুঁজতে থাকে।”

তিনি বলেন, “আমরা ১০-১২ জন চুড়ামনি পশ্চিমের দোকান এলাকায় অবস্থান করি। এসময় অপরিচিত একটি মাইক্রোবাস একবার পূর্ব দিকে একবার পশ্চিম দিকে ছুটতে থাকে। বিষয়টি সন্দেহজনক মনে হওয়ায় আমরা সড়কের উপর বালির বস্তা দিয়ে মাইক্রোবাসটিকে আটক করি। এসময় অন্যান্য ডাকাতরা পালিয়ে গেলেও একজনকে আটক করে লোকজন গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। এসময় ডাকাতদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মাওলানা আবু তাহের নামের একজন আহত হয়।”

আমির হোসেন আরো জানান, ডাকাতির ঘটনার পর ডাকাতরা একেকজন একেক পাহাড়ে ঢুকে পড়েছিল। পরে সবাই একত্রে মাইক্রোযোগে পালিয়ে যাচ্ছিল।

সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারেক মো. আবদুল হান্নান জানান, তিন বন্ধু মিলে মোটরসাইকেল যোগে ফুলতলা বাজার থেকে ছনখোলা এলাকায় যাচ্ছিল। এসময় ডাকাত দল তাদেরকে মারধর করে নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে বেঁধে রাখে। পরে রাত তিনটার দিকে স্থানীয় জনতা চুড়ামনি পশ্চিমের দোকান এলাকায় অপরিচিত মাইক্রোবাস থামিয়ে সন্দেহজনক একজনকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে।

এদিকে, ডাকাতের হামলায় ডাকাতির শিকার তিন বন্ধুসহ চারজন আহত হয়েছে। আহতদের সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এছাড়া গণপিটুনির শিকার গ্রেপ্তারকৃত শওকত ওসমান লিটনকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃত শওকত ওসমান পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। এ ঘটনায় ডাকাতির শিকার তৌহিদুল ইসলাম বাদি হয়ে সাতকানিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। -আজাদী অনলাইন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!