ব্রেকিং নিউজ
Home | ব্রেকিং নিউজ | লোহাগাড়ায় নিখোঁজ ব্যবসায়ীর মোবাইল থেকে ভাইয়ের কাছে টাকা দাবি

লোহাগাড়ায় নিখোঁজ ব্যবসায়ীর মোবাইল থেকে ভাইয়ের কাছে টাকা দাবি

image_printপ্রিন্ট করুন

নিউজ ডেক্স : লোহাগাড়ায় নিখোঁজ জাতীয় পার্টির নেতা আনোয়ার হোসেনের খোঁজ মেলেনি চারদিনেও। তবে শনিবার (২ জানুয়ারি) নিখোঁজ আনোয়ারের মোবাইল নম্বর থেকে টাকা চেয়ে তার ভাইকে ফোন করা হলেও পুলিশ বলছে ওরা ফ্রট (প্রতারক)।

নিখোঁজ আনোয়ারের ভাই মো. সেলিম বলেন, ‘গতকাল আমার ভাইয়ের মোবাইল নম্বর থেকে ফোন করে আমার কাছে ১০ লাখ টাকা দাবি করা হয়েছে। পরে এক লাখ ৩০ হাজার টাকায় বনিবনা হয়, কিন্তু কিছুক্ষণ পর থেকে ওই নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। এদিকে বিষয়টি আমরা পুলিশকে অবহিত করলেও তারা ফোনের উৎস সম্পর্কে কিছু জানাতে পারেনি।’

তিনি বলেন, ‘মুঠোফোনে ভড়াট গলার এক ব্যক্তি জানায় আমার ভাই তাদের হাতে আছে। এসময় আমি আমার ভাইয়ের সাথে একবার কথা বলানোর অনুরোধ করলেও তারা তা করেনি। এক পর্যায়ে আমি এক লাখ ৩০ হাজার টাকা দিতে রাজি হই। কিন্তু কিছুক্ষণ পর নম্বরটি বন্ধ করে দেয়া হয়।’

সেলিম জানান, গতকাল সকালেও কুমিল্লা থেকে ফোন করে এক ব্যক্তি জানান তার ভাইকে পাওয়া গেছে। কিন্তু গাড়ি ঠিক করে কুমিল্লা যাওয়ার প্রস্তুতি নিতে নিতেই ওই মুঠোফোনটিও বন্ধ করে দেয়া হয়। এভাবে বারবার একই ধরনের ঘটনা আনোয়ার হোসেনের পরিণতি নিয়ে তার পরিবারকে সঙ্কিত করে তুলছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকের হোসাইন বলেন, ‘টাকা চেয়ে যোগাযোগের বিষয়ে আমরা জেনেছি। তবে আমাদের কাছে তাদের ফ্রট মনে হয়েছে। ব্যক্তি নিখোঁজের ঘটনায় এমন ঘটনা প্রায়সই ঘটে।’

এ ঘটনায় পুলিশের তদন্তের অগ্রগতি কি জানতে চাইলে ওসি বলেন, ‘আমরা আসলে বিষয়টি বুঝতে পারছি না। কারণ তার (আনোয়ার হোসেন) তেমন কোনো রাজনৈতিক বিরোধ নেই। পারিবারিক দ্বন্দ্বেরও কোনো ঘটনা পাইনি। এখন তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে এগুনোর চেষ্টা করছি।’

প্রসঙ্গত, গত বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) সন্ধ্যার পর লোহাগাড়া দরবেশহাট এলাকা থেকে নিখোঁজ হন লোহাগাড়ার জাতীয় পার্টির নেতা ও ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন (৪২)। পরদিন বৃহস্পতিবার তার ভাই সেলিম বাদী হয়ে লোহাগাড়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি নম্বর- ১৪৪০) করেন। নিখোঁজের পর থেকে আনোয়ার হোসেনের মোবাইল ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যাচ্ছিল।

নিখোঁজ আনোয়ার হোসেন লোহাগাড়া সদর ইউনিয়নের মৃত আহমদ সওদাগরের ছেলে। তিনি উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতা। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি জাতীয় পার্টির প্রার্থী ছিলেন। জাগো নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!