লোহাগাড়ায় দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন থাকায় চরম দূর্ভোগে গ্রাহকরা

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়ায় পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন থাকায় চরম দূর্ভোগে শিকার হয়েছেন গ্রাহকরা। মঙ্গলবার (৪ মে) উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সকাল ৮টা থেকে টানা ১৩ ঘন্টা বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এর মধ্যে দুপুরে ঘন্টা খানেক বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার পর পুণরায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। রাত ৯টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। আকস্মিকভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকায় গ্রাহকদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

জানা যায়, তীব্র তাপদাহে দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ বিভ্রাটের ফলে রমজানে রোজাদারদের ইফতারসহ স্বাভাবিক কার্যক্রমে চরম ব্যাঘাত সৃষ্টি হয়েছে। শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। এছাড়াও টানা বিদ্যুৎ না থাকায় বাসা-বাড়ির ফ্রিজের মালামাল নষ্ট হয়ে গেছে। পানি নিয়েও চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে। হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। নিয়ম অনুযায়ী দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রাখলে মাইকিং করে তা গ্রাহকদের জানিয়ে দেয়ার কথা। কিন্তু ঘোষণা ছাড়াই বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রাখায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন গ্রাহকরা।

নুরুল ইসলাম ডালিম নামে এক খামারী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করে লিখেছেন, চুনতিতে সকাল থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় ইনকিবেটরে বসানো প্রায় দেড় হাজার কোয়েল ডিম নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। অমিত হাসান জীবন নামে একজন লিখেছেন, কোন পূর্ব ঘোষণা ছাড়া এভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রাখার কোন যৌক্তিকতা খুঁজে পাই না। আকাশে মেঘ করলেই যদি সমগ্র লোহাগাড়ায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় আর পুণরায় বিদ্যুৎ ফিরে পেতে ৯-১০ ঘন্টা লেগে যায় তাহলে লোহাগাড়াবাসীর উচিত হাতে হারিকেন নিয়ে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাও করা। এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সকাল থেকে আবার কোথাও দুপুর থেকে টানা বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ থাকার কথা জানিয়েছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

লোহাগাড়া বটতলী মোটর ষ্টেশনের ব্যবসায়ী জসিম উদ্দিন জানান, দুপুর থেকে টানা বিদ্যুৎ না থাকায় বেচাকেনার মৌসুমে সবাইকে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বিদ্যুৎ না থাকায় পুরো মার্কেট অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে রয়েছে। তীব্র গরম ও জেনারেটরের আলোতে কেনাকাটা করতে ক্রেতারা স্বচ্ছন্দবোধ করছেন না। এতে তাদের ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে।

আফসানা বেগম নামে এক গৃহিনী জানান, দীর্ঘক্ষণ টানা বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ থাকায় ফ্রিজে রাখা মালামাল নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। পানি শেষ হয়ে যাওয়ায় ছোট বাচ্চা নিয়ে ব্যাপক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। এছাড়া তীব্র গরমে পাখা বন্ধ থাকায় মশার উপদ্রবও বৃদ্ধি পেয়েছে।

এ ব্যাপারে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি লোহাগাড়া জোনাল অফিসের ডিজিএম ছরওয়ার জাহান জানান, দুপুরে হঠাৎ ঝড়ো বাতাসে গাছ পড়ে দোহাজারী গ্রিড সন্নিহিত এলাকায় মেইন লাইনের তার ছিড়ে যায়। এরপর থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রয়েছে। সংযোগ বিচ্ছিন্ন রাখার পূর্ব নির্ধারিত কোন কর্মসূচি ছিল না। তাই মাইকিং করা হয়নি। বিদ্যুৎ সংযোগ স্বাভাবিক করতে কাজ চলছে বলে জানান তিনি।