Home | ব্রেকিং নিউজ | লোহাগাড়ায় কথিত সাংবাদিককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ, মুচলেকায় মুক্তি

লোহাগাড়ায় কথিত সাংবাদিককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ, মুচলেকায় মুক্তি

image_printপ্রিন্ট করুন

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়ায় এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে চাঁদাদাবী করতে গিয়ে গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছেন কথিত এক ভূয়া সাংবাদিক। বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) বিকেলে উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের পুরান বিওসি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পরে ব্যবসায়ীরা তাকে পুলিশে সোপর্দ করে। ৫ ঘন্টা হাজতবাসের পর একইদিন রাত সাড়ে ১১টায় আমিরাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এস এম ইউনুসের জিম্মায় মুচলেকা নিয়ে তাকে মুক্তি দেয়া হয়।

কথিত সাংবাদিকের নাম সেলিম উদ্দিন (৪৫)। তিনি উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের মল্লিক ছোবহান বেপারী পাড়ার মৃত আলী আহমদের পুত্র ও বাংলা টাইমস নামে একটি অনলাইন পোর্টলের সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে দাপটের সাথে চলাফেরা করতো।

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মো. জিয়া উদ্দিন জানান, ঘটনারদিন তার মালিকানাধীন থ্রী স্টার অটোপার্টস দোকান থেকে কোন ছাড়া ২০ টাকা চাঁদা দাবী করেন কথিত সাংবাদিক সেলিম উদ্দিন। কারণ জানতে চাইলে তিনি আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এমন আচরণে আশপাশের ব্যবসায়ীরা এগিয়ে আসলে তিনি পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় ব্যবসায়ীরা উত্তেজিত হয়ে তাকে গণধোলাই দেয়। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে তাকে থানায় নিয়ে যায়।

আমিরাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এস এম ইউনুছ জানান, ঘটনাটি দুঃখজনক। খবর পেয়ে উভয়ের সাথে কথা বলে মিমাংসা করে দিয়েছি। সেলিম উদ্দিনকে আমার জিম্মায় থানা থেকে নিয়ে গেছি।

লোহাগাড়া প্রেস ক্লাব সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম জানান, সেলিম উদ্দিন নামে কোন সাংবাদিককে আমি চিনি না। লোহাগাড়া ক্লাবে এ নামে কোন সদস্য নেই। সেলিম নামের এক টাউট কথিত সাংবাদিকের চাঁদাবাজির বিষয়টি আমি শুনেছি। তাদেরকে আইনের আওতায় আনার জন্য প্রশাসনের নিকট দাবী জানাচ্ছি।

লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকের হোসাইন মাহমুদ জানান, জিয়া উদ্দিন নামের এক ব্যবসায়ীর কাছে থেকে সেলিম উদ্দিন নামে কথিত এক সাংবাদিক চাঁদা দাবীর মৌখিক অভিযোগ করেন। তারই প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থলে পুলিশ প্রেরণ করে তাকে থানায় নিয়ে যায় হয়। পরে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) এস এম ইউনুসের জিম্মায় মুচলেকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!