লোহাগাড়াসহ ছয় স্থানে হবে ২৬ কিমি বাইপাস ও ফ্লাইওভার

নিউজ ডেক্স : চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের যানজট ও দূরত্বসহ বাঁক কমানোর জন্য জাইকার অর্থায়নে ৬টি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রায় ২৬ কিলোমিটার বাইপাস ও ফ্লাইওভার নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এখন নির্দিষ্ট ছয় স্থানে সার্ভের কাজ চলছে।

চট্টগ্রাম দোহাজারী সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে নিত্য যানজট থাকে এমন ৬টি গুরুত্বপূর্ণ স্থান চিহ্নিত করা হয়েছে। এই স্থানসমূহ হলো পটিয়া বাইপাস, দোহাজারী বাইপাস, কেরানীহাট ফ্লাইওভার, লোহাগাড়া বাইপাস ও চকরিয়া বাইপাস। এতে সর্বশেষ যুক্ত হয়েছে পটিয়ার শান্তিরহাট ফ্লাইওভার। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ওই ৬টি স্থানে বাইপাস ও ফ্লাইওভার নির্মাণ করা হলে মহাসড়কের যানজট ও দূরত্ব অনেক কমে যাবে। একই সাথে কমে যাবে শতাধিক ভয়ঙ্কর বাঁক।

চট্টগ্রাম দোহাজারী সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সুমন সিংহ বলেন, পটিয়া, দোহাজারী, কেরানীহাট, লোহাগাড়া ও চকরিয়া বাইপাসের সার্ভে কাজ চলছে। এই ৫টি বাইপাসের বাইরে পটিয়ার শান্তিহাটে ফ্লাইওভার নির্মাণের জন্য একটি প্রস্তাব জাইকার সদর দপ্তর জাপানের টোকিওতে বিবেচনাধীন রয়েছে।

জানা গেছে, দোহাজারী সড়ক ও জনপথ বিভাগে সুমন সিংহ নির্বাহী প্রকৌশলী হিসেবে যোগদানের পরপর শান্তিরহাটে ফ্লাইওভার নির্মাণের জন্য প্রস্তাব করে জাইকার সদর দপ্তরে পাঠান। এতে জাইকা থেকে সম্মতি আসতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এই ব্যাপারে জাইকার সাথে আলোচনা চলছে।

জাইকার অর্থায়নে এই মহাসড়কের যানজট ও দূরত্ব কমানো এবং বাঁক পরিবর্তনের জন্য বাইপাস ও ফ্লাইওভার নির্মাণের পাশাপাশি ৬ লাইনের এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণের বিষয়েও আলোচনা চলছে। দৈনিক আজাদী