ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | লকডাউন ‘তামাশা’: ফখরুল

লকডাউন ‘তামাশা’: ফখরুল

নিউজ ডেক্স : করোনাভাইরাস সংক্রমণ মোকাবেলায় লকডাউন ঘোষণা নিয়ে সরকারের বার বার সিদ্ধান্ত পরিবর্তনকে ‘তামাশা’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ রবিবার (২৭ জুন) রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপার্সনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই মন্তব্য করেন। বিডিনিউজ

মির্জা ফখরুল বলেন, “সরকার ৭ দিনের জন্য পুনরায় লকডাউন ঘোষণা করেছে যা এখন তামাশায় পরিণত হয়েছে। এখন আবার বলছে যে সোমবার থেকে না বৃহস্পতিবার থেকে। এগুলো ফান। তামাশা তো সেজন্যই।”

কেন তামাশা বলছেন, তার ব্যাখ্যায় তিনি বলেন, “কেন তামাশা নয়? আপনারা এর আগে লকডাউন দিলেন প্রথমে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করলেন। সেই ছুটিতে দেখা গেল শ্রমিকরা একবার গেল, আবার তারা ফিরে আসলো। গতকাল আপনি আবার লকডাউনের ঘোষণা দিলেন। একটা লকডাউন তো চলছে এখন। স্টিল অন। একদল লোক যাচ্ছে- ছুটি ৭ দিন মনে করে। আবার আরেক দল ঢাকায় ফিরছে। এই যে অবস্থাগুলো, আপনি আগে চিন্তা করবেন না কী হতে পারে?”

মানুষের খাবারের চাহিদা নিশ্চিত করা না গেলে কোনো লকডাউনই কাজে আসবে না বলে মনে করেন বিএনপি মহাসচিব।

তিনি বলেন, “গরীব সাধারণ মানুষ দিন আনে দিন খায় শ্রেণীর মানুষের খাদ্যের ব্যবস্থা না করে অপ্রাতিষ্ঠানিক সেক্টরের শ্রমিক ও কর্মরত ব্যক্তিদের নগদ টাকা ট্রান্সফারের ব্যবস্থা না করে লকডাউন কখনই কার্য্কর হতে পারে না।”

দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সভাপতিত্বে বুধবার জাতীয় স্থায়ী কমিটির সভায় নেওয়া সিদ্ধান্তগুলো সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরেন বিএনপি মহাসচিব।

বিএনপি মহাসচিব জানান, রাজধানী ও সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে করোনাভাইরাসের ‘ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট’ সংক্রমণ ভয়াবহ রূপ নেওয়ায় স্থায়ী কমিটির সভায় উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।

সেখানে বলা হয়, রোগীর চাপে সরকারি ও স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠানগুলোতে জরুরি চিকিৎসা উপকরণ ও জীবন রক্ষাকারী ওষুধের মারাত্মক সঙ্কট দেখা দিয়েছে। রাজধানীর কেন্দ্রীয় ঔষাধাগারে অধিকাংশ জরুরি চিকিৎসা উপকরণের মজুদও প্রায় শেষ।

মির্জা ফখরুল বলেন, “রেমডিসিভির ইনজেকশন নেই, করোনা টেস্টিং কিট নেই, ভেন্টিলেটার ও হাই ফ্লো নেইজাল ক্যানুলা নেই। এছাড়া আইসিইউ বেড, অক্সিজেন, কনসেনট্রেটর অক্সিজেন সিলিন্ডারের পরিমাণ অত্যন্ত অপর্যাপ্ত। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সব ব্যবস্থা আছে বলে যে মিথ্যাচার করছে তাতে স্থায়ী কমিটির সভায় ক্ষোভ ও ধিক্কার জানানো হয়।”

বিএনপির নেতৃত্বে কোনো সমস্যা নেই দাবি করে সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন, “বিএনপি একটা রাজনৈতিক দল, এটা একটা পেট্রোজেনিয়াস পলিটিক্যাল পার্টি, কোনো মনোবৃত্তিক পলিটিক্যাল পার্টিও নয়। ইটস এ প্ল্যাটফর্ম অব অল দ্য পেট্রোজিনিয়াস এলিমেন্টস। সেই জায়গায় কিছু কথা থাকবে, যেহেতু গণতান্ত্রিক দল সেখানে বিভিন্ন রকমের কথা-বার্তা থাকবে।”

দলকে আগের চেয়ে বেশি শক্তিশালী এবং অত্যাচার-নির্যাতনের মধ্যেও বিএনপি মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে দাবি করে তিনি বলেন, “আন্ডার দ্য লিডারশিপ অব তারেক রহমান বিএনপি ইজ ইউনাইটেড দেন দ্য পাস্ট।… জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষা এই দল ধারণ করে আছে এবং তারেক রহমান সাহেব এই দুর্দিনে সুদূর লন্ডন থেকে যে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সেই নেতৃত্বে গোটা দল আজ ঐক্যবদ্ধ হয়ে আছে।”

বিএনপিকে নিয়ে ‘কিছু গণমাধ্যমে’ নেতিবাচক সংবাদ করা হয় দাবি করে তিনি বলেন, “বিএনপির মধ্যে কোনো সমস্যা নাই। যারা বিএনপির বিরুদ্ধে লিখছেন তারা নিঃসন্দেহে ভুল তথ্য থেকে লিখেন, বিভ্রান্ত হয়ে লিখেন।”

‘বিএনপির ভবিষ্যত কুয়াশাচ্ছন্ন’- আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এই মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, “বিএনপির ভবিষ্যৎ নিয়ে ওনারা এত উদ্বিগ্ন কেন? তারা মনে করেন যে বিএনপি হচ্ছে একমাত্র রাজনৈতিক দল যা জনগণের ইচ্ছা-আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিনিধিত্ব করে, … যারা এই ভয়াবহ দানবকে পরাজিত করে সত্যিকার অর্থে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে পারবে।”

বিএনপি মহাসচিব বলেন, “আমি বলতে চাই, আওয়ামী লীগের ভবিষ্যৎ ঘোরতর অন্ধকারে নিমজ্জিত। এজন্য যে তারা যে কাজগুলো করেছে এবং করছে গোটা জাতিকে তারা আজকে একটা অন্ধকারে ঠেলে দিয়েছে।” সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স ও তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক রিয়াজউদ্দিন নসু উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!