Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে প্রতারণা করে ধর্ষণ, যুবক গ্রেফতার

ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে প্রতারণা করে ধর্ষণ, যুবক গ্রেফতার

image_printপ্রিন্ট করুন

নিউজ ডেক্স : জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে প্রেমের সম্পর্ক করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিজিৎ ঘোষ (২২) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে কোতোয়ালি থানা পুলিশ।  

শনিবার (২৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ফিরিঙ্গীবাজারস্থ  শামিমা কালাম মাতৃনিবাস থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বিষয়টি জানিয়েছেন কোতোয়ালী জোনের সিনিয়র সহকারী কমিশনার নোবেল চাকমা। গ্রেফতার অভিজিৎ ঘোষ চট্টগ্রাম জেলার বোয়ালখালী থানার পূর্ব গোমদন্ডী আশীষ কুমার ঘোষের ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর সঙ্গে অভিজিৎ ঘোষের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পরিচয় হয়। ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে এসএমএস আদান প্রদানের মাধ্যমে দু’জনের মধ্যে বন্ধুত্ব ও প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এদিকে মামলার ২ নম্বর আসামি সত্যজিৎ দাশ শুভ (২৮) ধর্ষণকারী অভিজিৎ ঘোষকে একজন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বলে পরিচয় করিয়ে দেন।  

কোতোয়ালী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নেজাম উদ্দিন জানান,  অভিজিৎ ঘোষ জিজ্ঞাসাবাদে প্রতারণার কথা স্বীকার করেছেন। ওসি বলেন, আসামি সত্যজিৎ দাশ শুভের সহায়তায় বিভিন্ন সময়ে ওই শিক্ষার্থীকে প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করেন অভিজিৎ। তিনি আরও জানান, একপর্যায়ে পঞ্চাশ টাকা মূল্যমানের দুটি নন-জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে জাল স্বাক্ষর করে ও ভুয়া বিয়ের হলফনামা তৈরি করে একটি ফটোকপি তরুণীকে দেন এবং তাকে বিয়ে করবে মর্মে প্রতিশ্রুতি দেন। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী আসামির বিরুদ্ধে থানায় নারী শিশু আইনের ৯(১) ধারায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

উপ পরিদর্শক (এসআই) মোমিনুল হাসান জানান, ফিরিঙ্গীবাজারস্থ শামিমা কালাম মাতৃনিবাসের নিচ তলার বাসা থেকে অভিজিৎ ঘোষকে গ্রেফতার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিয়ে প্রতারণাপূর্বক ধর্ষণ করার কথা স্বীকার করেন। মামলার দুই নম্বর আসামি সত্যজিৎ দাশ শুভকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। বাংলানিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!