Home | ব্রেকিং নিউজ | ঈদযাত্রা নিরাপদ ও সড়ক দূর্ঘটনা কমাতে নিসচা লোহাগাড়ার ১১ দফা প্রস্তাবনা

ঈদযাত্রা নিরাপদ ও সড়ক দূর্ঘটনা কমাতে নিসচা লোহাগাড়ার ১১ দফা প্রস্তাবনা

image_printপ্রিন্ট করুন

এলনিউজ২৪ডটকম : ঈদযাত্রা নিরাপদ ও চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের প্রতিনিয়ত ঘটে যাওয়া দূর্ঘটনা কমাতে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) লোহাগাড়া শাখা ১১ দফা প্রস্তাবনা ও দাবী পেশ করেছে। শনিবার (২৫ জুলাই) দুপুরে উপজেলা সদরের বটতলী মোটর ষ্টেশনস্থ সংগঠনের অস্থায়ী কার্যালয়ে এক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) লোহাগাড়া শাখার আহবায়ক মোজাহিদ হোসাইন সাগর ১১ দফা প্রস্তাবনা পেশ করেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের যুগ্ম আহবায়ক জয়নাল আবেদীন বাবু। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন সংগঠনের যুগ্ম আহবায়ক আবদুল্লাহ আল সায়েম।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লোহাগাড়া সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আবদুল আউয়াল জনি, স্টার সুপার মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাত্তার সিকদার, লোহাগাড়া প্রেস ক্লাবের দপ্তর সম্পাদক রায়হান সিকদার, নিসচা লোহাগাড়া শাখার সদস্য আ.ন.ম আবদুল্লাহ বাবলু, আবু ছিদ্দিক, এডভোকেট শিহাব, মো. ফারুক, মো. সোহাগ মিয়া, মো. শরুফুদ্দীন সাইফু, ইমরান খান বাপ্পী, মো. পারভেজ, সংবাদকর্মী যথাক্রমে এরশাদ আলম, জমির উদ্দীন, আরিফুল ইসলাম রিফাত, শাহজাদা মিনহাজ, এম. এইচ. রাব্বী, তুষার আহমেদ কায়সার ও ছাত্রলীগ নেতা ইরফান বিন ইসহাক।

সম্প্রতি সড়ক দূর্ঘটনায় নিহতের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন মাওলানা জাহেদ হোসাইন।

১১ দফা প্রস্তাবনা ও দাবী সমূহ :

১। দক্ষিণ চট্টগ্রাম বিশেষ করে লোহাগাড়া অঞ্চলে দুর্ঘটনাপ্রবণ ও ঝুঁকিপূর্ণ স্থানগুলো চিহ্নিত করে গতিরোধক ও জনসচেতনতামূলক রোড-সাইন প্রদান।

২। সামান্য বৃষ্টিতেই চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে বিভিন্ন জনবহুল ও গুরুত্বপূর্ণ অংশে খানাখন্দের সৃষ্টি হওয়া দক্ষ ও টেকসই উন্নয়ন কাজের পরিপন্থি। সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ঈদ-উল-আয্হার আগে সৃষ্ট খানাখন্দ সংস্কার।

৩। অদক্ষ চালকদের মাধ্যামে চালিত ও ফিটনেস বিহীন যাত্রীবাহী লেগুনা পরিবহণ নিয়ন্ত্রণে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ। সেই সাথে লোহাগাড়া-চকরিয়া, লোহাগাড়া-কেরানীহাট মিনিবাস সার্ভিস চালুতে প্রশাসনিক ও জনপ্রতিনিধিদের উদ্যোগ গ্রহণ করা।

৪। রাতের বেলা মহাসড়কে চলাচলকৃত ব্যাটারি চালিত রিক্সায় নিষিদ্ধ হেডলাইটের ব্যবহার সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম একটি কারণ। প্রশাসনের কাছে এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

৫। গণমাধ্যম ও প্রচারমাধ্যমে সড়ক দুর্ঘটনারোধে জনসচেতনতা বাড়াতে যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করা।

৬। সকল সিগন্যাল পয়েন্টে বৈদ্যুতিক সিগন্যাল স্থাপন করা।

৭। সড়ক দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থদের সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় পুণর্বাসন ও চিকিৎসার খরচ যোগানের ব্যবস্থা করা।

৮। দক্ষিণ চট্টগ্রামে নির্মিত একমাত্র ট্রমা সেন্টার “লোহাগাড়া ট্রমা সেন্টার” দ্রুত চালু করার মাধ্যমে আহতদের চিকিৎসা দিয়ে মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা করা।

৯। যানবাহনের অতিরিক্ত গতি নিয়ন্ত্রণ, হেলমেটবিহীন মোটরসাইকেল চালক ও গাড়ি চালানো অবস্থায় মোবাইল ফোনে কথা বলা চালকদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

১০। চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কটি চার-লেনে উন্নিত না হওয়া সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম প্রধান একটি কারণ। এই যোগাযোগ সড়কটি দ্রুত চার-লেনে উন্নিত করে সড়ক দুর্ঘটনার হার কমিয়ে আনার দাবী।

১১। বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গাড়ি চলাচল ও জনসাধারণের মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিতকরণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!