ট্রাম্পের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

আন্তর্জাতিক ডেক্স : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। গত বছরের জানুয়ারিতে ইরাকি সামরিক কমান্ডার আবু মাহদি আল মুহানদেসকে ড্রোন হামলায় হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বাগদাদের একটি আদালত এ পরোয়ানা জারি করেছে।

বৃহস্পতিবার (০৭ জানুয়ারি) আল-জাজিরার একটি প্রতিবেদন এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

২০২০ সালের ৩ জানুয়ারি বাগদাদ বিমানবন্দরের বাইরে হাশদ আল-শাবি গোষ্ঠীর উপপ্রধান আবু মাহদি আল মুহানদেস মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত হন। ওই একই হামলায় নিহত হন ইরানের বিপ্লবী বাহিনীর প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানি।

ডোনাল্ড ট্রাম্প এই হামলার নির্দেশ দিয়েছিলেন। এই হামলার পর ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘এক জনের দামে দুজনের’ হিসাব শেষ করা হলো।

এর আগে গত বছরের জুনে ইরানের একটি ট্রাম্পের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। এ ছাড়া আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থার (ইন্টারপোল) কাছে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে রেড নোটিশ দিতে অনুরোধ জানানো হয়।

বিচার বিভাগের বরাত দিয়ে ফ্রান্স২৪ জানায়, ইরাকের দণ্ডবিধি ৪০৬ ধারা অনুযায়ী ট্রাম্পের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। এই ধারায় পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের শাস্তির বিধান মৃত্যুদণ্ড রাখা হয়েছে।




লোহাগাড়া প্রবাসী সমিতি-সৌদি আরবের কমিটিতে কুতুব আহবায়ক খলিল সদস্য সচিব

লোহাগাড়া প্রবাসী সমিতি-সৌদি আরবের ৬১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ আহবায়ক কমিটি গঠিত হয়েছে। সম্প্রতি ভার্চুয়াল এক জরুরী সভা সংগঠনের যুগ্ম আহবায়ক এনামুল হক এনামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় উপস্থিত সদস্যদের সর্বসম্মতিক্রমে মুহাম্মদ কুতুব উদ্দিনকে আহবায়ক ও সাংবাদিক খলিল চৌধুরীকে সদস্য সচিব নির্বাচিত করা হয়েছে।

নতুন আহবায়ক কমিটির যুগ্ম-আহবায়ক যথাক্রমে এনামুল হক এনাম, মুহাম্মদ লোকমান হাকিম, তারেক আজিজ চৌধুরী, শেখ আবদুল আজিজ, মুহাম্মদ জানে আলম, মুহাম্মদ নুরুল আমিন, ফয়েজ আহমদ চৌধুরী, শহিদুল ইসলাম মনু, মুহাম্মদ জাকের উল্লাহ বাচ্চু ও এস. এম. আবু তাহের।

সদস্যবৃন্দ যথাক্রমে মুহাম্মদ কামাল উদ্দিন, রাশেদুল আমিন চৌধুরী, মাওলানা মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান, ফরহাদ হোসেন রেজা, হাফেজ এনামুল হক, মুহাম্মদ শাহজাহান, মোঃ নাজিম উদ্দিন, কাজী সাইফুদ্দিন ইয়াহিয়া, মুহাম্মদ আসাদ সিকদার, মোহাম্মদ ফারুক, ওবায়দুল্লাহ চৌধুরী, আমজাদ হোসেন তুষার, সালমান মাহমুদ রুবেল, মুহাম্মদ শোয়াইব, আবদুস ছবুর বিন মুনির, মুহাম্মদ ইকবাল, আবদুর রহিম, আবদুল গফুর, জিয়া উদ্দিন চৌধুরী, মুহাম্মদ নাছির উদ্দিন-(আমিরাবাদ), রিদোয়ানুল হক আজিজ, মোঃ শহিদুল ইসলাম-(আমিরাবাদ), জিয়াউল হক জিয়া, মেহেদী হাসান রাসেল, দিদারুল আলম সিকদার, মুহাম্মদ শওকত আলী, মুহাম্মদ হারুন রশিদ, মুহাম্মদ আলমগীর, মোঃ সাজ্জাদ হোসাইন, এস্তাফিজুর রহমান রায়হান, সৈয়দ মোঃ তারেক আজিজ, মোঃ রবিউল হোসেইন , আসাদুজ্জামান রিয়াদ, এমডি শফিকুল ইসলাম-(বড়হাতিয়া), মোঃ দেলোয়ার হোসেন, মুহাম্মদ হাসান মুরাদ, মুহাম্মদ কাইছার হামিদ, মোঃ নুরুল করিম, আরিফুল ইসলাম আদিফ, মুহাম্মদ নাছির উদ্দিন-(চরম্বা), মোঃ শফিকুল ইসলাম-(পুটিবিলা), লিয়াকত আলী, মোহাম্মদ রাসেল উদ্দিন, রায়হানুল ইসলাম, মোঃ জাহেদুল ইসলাম, মোঃ ইয়াছিন মিয়া, মুহাম্মদ নুরুল কবির, মুহাম্মদ নাজিমুল ইসলাম ও ইফতেখান হোসেন চৌধুরী নুহাস।

উল্লেখ্য, লোহাগাড়া প্রবাসী সমিতি- সৌদি আরবের নতুন এ আহবায়ক কমিটি আগামী ৩ মাসের মধ্যে অভিষেক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রবাসীদের কল্যাণে একটি সরাসরি কার্যকরী কমিটি গঠন করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি




সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত চসিক প্রশাসক

নিউজ ডেক্স : এবার সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত হলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন। শুধু তিনি নন তার স্ত্রী ডাক্তার ফজলুল হাজেরা ডিগ্রি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক তাহমিনা আক্তারের রিপোর্টও পজিটিভ। দুজনই বাসায় আইসোলেশনে রয়েছেন।

বুধবার (৬ জানুয়ারি) জেনারেল হাসপাতালের রিজিওনাল টিবি রেফারেল ল্যাবরেটরিতে (আরটিআরএল) সুজন ও তার স্ত্রীর নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়। তবে তাদের কোনো উপসর্গ নেই। তারা দুজনই শারীরিকভাবে সুস্থ রয়েছেন বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামের বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার কবির।

তিনি বলেন, সুজন ও তার স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত হলেও দুজনই উপসর্গহীন। তারা সুস্থ রয়েছেন এবং বাসায় আইসোলেশনে আছেন। আমার সাথে সন্ধ্যায় কথা হয়েছে।

চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি। করোনায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন স্থগিত হয়ে যাওয়ার প্রেক্ষিতে চসিকের আগের নির্বাচিত পরিষদ মেয়াদ উত্তীর্ণ। পরে গত বছরের ৫ আগস্ট চসিকের প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ পান সুজন। ১৮০ দিনের দায়িত্বপ্রাপ্ত সময়ের মধ্যে ইতোমধ্যে ১৫১ দিন পার করেছেন তিনি। আজাদী অনলাইন




সাতকানিয়ায় দুই ইটভাটা উচ্ছেদ, ১৫ লাখ টাকা জরিমানা

নিউজ ডেক্স : সাতকানিয়ায় অভিযান চালিয়ে দুইটি অবৈধ ইটভাটা উচ্ছেদ করা হয়েছে। পরিবেশগত ছাড়পত্র ও ইট পোড়ানোর লাইসেন্স না থাকায় এসব ইটভাটা উচ্ছেদ করা হয়। এছাড়া অভিযানে সাতটি ইটভাটাকে মোট ১৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।  

বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) দিনব্যাপী অভিযান চালিয়ে এসব ইটভাটা উচ্ছেদ করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী।  

অভিযানে পরিবেশ অধিদফতরের পক্ষে চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আফজারুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ, র‍্যাব-৭ এবং ফায়ার সার্ভিস অভিযানে সহযোগিতা করে।

অভিযানে অনুমোদনবিহীন কার্যক্রম পরিচালনার অভিযোগে সাতকানিয়া উপজেলার এওচিয়া ইউনিয়নে ১২০ ফুট চিমনিবিশিষ্ট দুইটি ইটভাটার কিলন ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়। উচ্ছেদ করা ইটভাটাগুলো হলো- মেসার্স এএসসি ব্রিকস ফিল্ড ও মেসার্স হাজী দানু মিয়া ব্রিকস।  

সাতটি ইটভাটাকে মোট ১৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এরমধ্যে মেসার্স বিসমিল্লাহ ব্রিকসকে ১ লাখ ৫০ হাজার, মেসার্স মা ব্রিকসকে ১ লাখ ৫০ হাজার, হযরত আলী (র.) ব্রিকসকে ১ লাখ ৫০ হাজার, মেসার্স খাজা ব্রিকসকে ১ লাখ ৫০ হাজার, কাজী এম ব্রিকসকে ৫ লাখ, থ্রী স্টার ব্রিকসকে ২ লাখ ও জামাল ব্রিকস ম্যানুফ্যাকচারকে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।  

পরিবেশ অধিদফতর চট্টগ্রাম জেলার উপ-পরিচালক জমির উদ্দিন জানান, পরিবেশগত ছাড়পত্রবিহীন ও ইট পোড়ানোর লাইসেন্সবিহীন অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযানের অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার সাতকানিয়ায় দুইটি ইটভাটা উচ্ছেদ করা হয়েছে। সাতটি ইটভাটাকে মোট ১৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এসব ইটভাটার ১৫ লাখ কাঁচা ইট ধ্বংস করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী জানান, সাতকানিয়া উপজেলায় বৃহস্পতিবার অভিযানে গিয়ে দেখা যায় ইটভাটাগুলোর পরিবেশগত ছাড়পত্র ও জেলা প্রশাসনের লাইসেন্স নেই। কৃষি জমি ও পাহাড় থেকে মাটি নিয়ে ইট উৎপাদন করে আসছিল।  হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী চট্টগ্রাম জেলার সকল অবৈধ ইটভাটা উচ্ছেদে অভিযান চলমান থাকবে বলে জানান চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের এই কর্মকর্তা। বাংলানিউজ