মাংসের পরিমাণ কম দেয়ায় বিয়ের অনুষ্ঠানে সংঘর্ষ, নিহত ১

নিউজ ডেক্স : বরিশালের একটি বিয়ে বাড়িতে খাওয়ার সময় মাংসের পরিমাণ কম দেয়াকে কেন্দ্র করে বর-কনে পক্ষের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে বর পক্ষের একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার বিকেলে বাবুগঞ্জ উপজেলার চাদপাশা ইউনিয়নের রফিয়াদি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে নিহত আজহার মীর (৬৫) বর সজিব মীরের চাচা।

চাদপাশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান সবুজ জানান, কয়েক দিন পূর্বে রফিয়াদি গ্রামের মোতাহার মীরের ছেলে সজিব মীরের সাথে বরিশাল নগরীর কাউনিয়া সাবান ফ্যাক্টরি এলাকার আবুল কালামের মেয়ে রুনা বেগমের বিয়ে হয়। দুপুরে বরের বাড়িতে বৌভাত অনুষ্ঠান ছিলো। অনুষ্ঠানে যোগ দিতে কনের প্রায় অর্ধশত আত্মীয় স্বজন রফিয়াদি গ্রামে বরের বাড়িতে আসে। খাবারের সময় মাংসের পরিমাণ কম দেয়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় আজহার মীর মারা যান।

বরিশাল মহানগর পুলিশের এয়ারপোর্ট থানার ওসি জাহিদ বিন আলম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। জড়িতদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে। যমুনা টিভি




হদিস পাচ্ছে না রেলের টিকিট বিক্রির ৯৪ হাজার টাকার

নিউজ ডেক্স : চট্টগ্রাম-নোয়াখালী রুটের ছয়টি স্টেশনের টিকিট বিক্রির ৯৪ হাজার ৭০০ টাকার হদিস পাচ্ছে না রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের কর্মকর্তারা। এ ঘটনা তদন্তে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের এক কর্মকর্তাকে প্রধান করে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম-নোয়াখালী রুটের (নোয়াখালী থেকে ঢাকাগামী নোয়াখালী এক্সপ্রেস ট্রেনের) ছয়টি স্টেশনের টিকিট বিক্রির ৯৪ হাজার ৭০০ টাকা চট্টগ্রামে পাঠানোর উদ্দেশে ছয়টি থলেতে ভরে সেগুলো বিশেষ সিন্দুকে ঢুকিয়ে সিলগালা করে লাকসাম স্টেশন মাস্টার শাহাবুদ্দিনের কাছে পাঠানো হয়।

শাহাবুদ্দিন সিন্দুকটি গার্ড থেকে বুঝে নিয়ে ৩০ ডিসেম্বর ময়মনসিংহ থেকে আসা চট্টগ্রামগামী নাসিরাবাদ এক্সপ্রেস ট্রেনে তুলে দেন। ট্রেনের গার্ড চট্টগ্রাম পে অ্যান্ড ক্যাশ অফিসে বুঝিয়ে দিতে গেলে দেখা যায় সিন্দুকটির তালা ভাঙা। একই সঙ্গে সিন্দুক থেকে ‘হাওয়া’ হয়ে গেল ৯৪ হাজার ৭০০ টাকা।

অভিযোগ পাওয়া গেছে, লাকসাম স্টেশন মাস্টার শাহাবুদ্দিনকে সিন্দুকের তালা ভাঙার গরমিল সম্পর্কে অবহিত করা হয়েছিল। এরপরও তিনি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে সিন্দুকের গায়ে নতুন একটি কার্ড ট্যাগ লাগিয়ে চট্টগ্রাম পাঠিয়ে দেন।

লাকসাম স্টেশনের কর্মকর্তারা জানান, নিয়ম অনুযায়ী স্টেশন মাস্টারের নজরে যেকোনো ত্রুটি এলে তা ফোনে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করতে হয়। এ ঘটনায় তিনি ঊর্ধ্বতন কাউকে না জানিয়ে নতুন কার্ড ট্যাগ লাগিয়ে সিন্দুকটি চট্টগ্রাম কেন পাঠালেন?

এদিকে, এ ঘটনায় রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের সহকারী পরিবহন কর্মকর্তা মনিরুজ্জামানকে প্রধান করে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বিষয়টি স্বীকার করে মনিরুজ্জামান বলেন, ঘটনা তদন্ত করতে গত ২ জানুয়ারি আমরা লাকসাম গিয়েছিলাম। সেখানকার কর্মকর্তা ও কর্মরত কুলিদের বক্তব্য গ্রহণ করা হয়েছে, পাশাপাশি সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে ঘটনাটি নোয়াখালী ও লাকসামের মধ্যেই কোথাও ঘটেছে বলে ধারণা করছি। জাগো নিউজ




সড়ক দুর্ঘটনায় ছোটপর্দার উঠতি অভিনেত্রীর মৃত্যু

নিউজ ডেক্স : না ফেরার দেশে চলে গেছেন ছোটপর্দার উঠতি অভিনেত্রী আশা চৌধুরী। সোমবার (৪ জানুয়ারি) মধ্যরাতে রাজধানীর দারুস সালাম এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে তার। গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নাট্য নির্মাতা রোমান রুনি।

তিনি জানান, সোমবার রাতে শুটিং শেষে বাসায় ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনার কবলে পড়েন আশা। সেখানেই তার মৃত্যু হয়েছে। তার মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে রাখা হয়েছে।

উঠতি এ অভিনেত্রীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন জনপ্রিয় অভিনেতা আনিসুর রহমান মিলন। নিজের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তিনি লিখেছেন, দুদিন আগেই কাজ করেছি একসাথে। এক সড়ক দুর্ঘটনায় আশা চিরতরে আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন। আশার আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।

ইডেন কলেজে আইন বিভাগের ছাত্রী ছিলেন আশা। ছোটবেলা থেকেই জড়িত মিডিয়ার সঙ্গে। বাংলাদেশ টেলিভিশনের তালিকাভুক্ত শিল্পীও ছিলেন তিনি। একাধিক একক নাটক, টেলিফিল্ম এবং ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করেছেন আশা। 




ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্রাথমিকে ভর্তি শেষ করতে হবে

নিউজ ডেক্স : আগামী ফেব্রুয়ারির মধ্যে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থী ভর্তি শেষ করার নির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

অধিদপ্তরের এক আদেশে আজ মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) প্রাথমিক শিক্ষার সব বিভাগীয় উপ-পরিচালক এবং জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের এ নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে ফেব্রুয়ারির মধ্যে ভর্তি সম্পন্ন করতে হবে। প্রাক-প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত কোনো ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া যাবে না।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্যাচমেন্ট এলাকার সব শিশুকে প্রাক-প্রাথমিক ও প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। ভর্তিচ্ছুক শিশুদের নাম, ঠিকানা ও প্রয়োজনীয় তথ্যাদি রেজিস্ট্রারে লিখে রেখে সংশ্লিষ্ট শ্রেণিতে ভর্তি করতে হবে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিশুদের ভর্তি করানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জানিয়ে বলা হয়, অসুস্থ শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মচারী এবং সন্তানসম্ভবা শিক্ষিকাদের বিদ্যালয়ে উপস্থিত রাখা থেকে বিরত রাখতে হবে। অসুস্থ শিক্ষার্থী নিয়ে বিদ্যালয়ে না আসার জন্য অভিভাবকদের অনুরোধ করতে হবে। অসুস্থ শিক্ষার্থীদের ভর্তি নিশ্চিত করতে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিশেষ ব্যবস্থা নেবে।

করোনাভাইরাসের কারণে বেসরকারি কিন্ডারগার্টেন বা স্কুল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় যেসব শিক্ষার্থী বিদ্যালয়বিহীন হয়ে পড়েছে সেগুলোতে সংশ্লিষ্ট ক্লাস্টারের আওতাধীন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে ভর্তির ব্যবস্থা করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বাংলানিউজ




লোহাগাড়ায় নিখোঁজ ব্যবসায়ীকে জীবিত ফিরে পেতে স্বজনদের আকুতি

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়ায় নিখোঁজ ব্যবসায়ী ও জাতীয় পার্টি উপজেলা শাখার সদস্য আনোয়ার হোসেনকে জীবিত ফিরে পেতে আকুতি জানিয়েছেন স্বজনরা। মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) বিকেলে বটতলী মোটর ষ্টেশনস্থ এক হোটেলের হল রুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নিখোঁজ ব্যবসায়ীর মা জান্নাত আরা বেগম ও স্ত্রী নারগিস আক্তার কান্নাজড়িতে কন্ঠে এ আবেদন জানান।

জাতীয় পার্টি লোহাগাড়া উপজেলা শাখার উদ্যোগে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের আহবায়ক আলহাজ্ব মোহাম্মদ ছালেম। তিনি জানান, গত ৩০ ডিসেম্বর থেকে জাতীয় পার্টি উপজেলা শাখার সদস্য ও জাতীয় যুব সংহতি উপজেলা শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন (৪২) নিখোঁজ রয়েছেন। এরপর থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাকে উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু রহস্যজনক কারণে তাকে এখনো উদ্ধার করা যায়নি। তাকে উদ্ধারের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে আরোও আন্তরিকতার সাথে কাজ করার আহবান জানান। দ্রুত নিখোঁজ আনোয়ার হোসেনকে উদ্ধার করতে না পারলে সংগঠনের পক্ষ থেকে মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি গ্রহণের হুশিয়ারি দেন তিনি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নিখোঁজ ব্যবসায়ীর স্ত্রী নার্গিস আক্তার জানান, তার স্বামী নিখোঁজ হওয়ার ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট কাউকে অভিযুক্ত করতে চান না। সম্প্রতি লোহাগাড়া সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করেছেন তার স্বামী। ওই সময় যারা তার আশেপাশে ছিল তারা এ ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত বলে ধারণা করছেন। তবে যে বা যারা তার স্বামীকে অপহরণ বা গুম করে রেখেছেন তাদের প্রতি কোন ক্ষোভ থাকবে না, যদি তার স্বামীকে জীবিত অবস্থায় ফিরে দেন। এছাড়া তিনি স্বামীকে জীবিত অবস্থায় ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টি লোহাগাড়া শাখার সদস্য সচিব মো. সেলিম, যুগ্ম আহবায়ক খালেদ বাদশা সিকদার, আবদুল ওয়াহাব খোকন, মৌলানা সিফাত উল্লাহ, মো. ইলিয়াছ, সিরাজুল ইসলাম, মো. জাহাঙ্গির, নিখোঁজ ব্যবসায়ী মা জান্নাত আরা বেগম, স্ত্রী নারগিস আক্তার, ছেলে মো. সাঈদী, মো. মিসকাত, মো. ইবনু, ভাই খোরশেদ আলম শিমুল ও মো. জসিম উদ্দিন।

উল্লেখ্য, গত ৩০ ডিসেম্বর উপজেলা সদরের দরবেশহাট সওদাগর পাড়ায় নিজ খামার থেকে বাসায় ফেরার পথে নিখোঁজ হন ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন। পরদিন তার ভাই সেলিম উদ্দিন লোহাগাড়া থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন। এ সংক্রান্তে গত ১ জানুয়ারি লোহাগাড়ানিউজ২৪ডটকম-এ ‘লোহাগাড়ায় নিখোঁজের ৩ দিনেও সন্ধান মেলেনি ব্যবসায়ীর’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।