ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | সাতকানিয়ায় স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক মেরামত

সাতকানিয়ায় স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক মেরামত

Satkania Pic 18.6

এলনিউজ২৪ডটকম : সাতকানিয়া উপজেলার কালিয়াইশ এলাকায় নক্সবন্দিয়া মোজাদ্দেদীয়া হাকিমিয়া সুন্নিয়া পরিষদের সদস্যরা স্বেচ্ছাশ্রমে মেরামত করছেন মুক্তিযোদ্ধা ফজল করিম সড়ক। গত বুধবার থেকে শুরু হয় এ মেরামত কাজ। প্রায় ১ কিলো মিটার মেরামত শেষ করতে আরো দু’দিন লাগবে বলে জানান পরিষদের সদস্য নাজিম উদ্দিন তালুকদার।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, দল বেধে পরিষদের সদস্যরা মিলেমিশে আনন্দের সাথে রোদে পুড়ে, বৃষ্টিতে ভিজে গায়ের ঘাম ঝরিয়ে নিরলসভাবে সড়ক মেরামতের কাজ করে যাচ্ছেন। কেউ ট্রাক থেকে ইট সুরকি নামিয়ে সড়কে বসিয়ে দিচ্ছেন, কেউ কাটছেন মাটি, অন্যরা বহন করছেন। আবার অনেকে সড়কে দেয়া মাটি সমান করার কাজে ব্যস্ত। পরিষদের অধিকাংশ সদস্য বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী। তাছাড়া রয়েছেন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও চাকুরীজীবি। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাওয়া-আসার পথ সুগম করতে তারাও লেগে গেছেন মেরামত কাজে। শিক্ষার্থীরা হাতের বই-খাতা-কলম রেখে তুলে নেয় কোদাল আর মাটির ঝুড়ি। প্রয়োজন আইন মানেনা। জরুরী ভিত্তিতে সড়কের প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করে সড়ক মেরামতের কাজে নেমে গেছেন সকলে।

জানা যায়, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের সাথে সংযুক্ত গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি চলাচলের অনোপযোগী হয়ে পড়ে দীর্ঘদিন ধরে। ইতিমধ্যে দু’বার উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ থেকে টেন্ডার পূর্বক ঠিাকাদারকে কার্যাদেশ প্রদান করা হয়। রহস্যজনক কারনে দু’বারই কার্যাদেশ প্রাপ্ত ঠিকাদার কাজ ফেলে চলে যান। তৃতীয়বারে ঠিকাদার সিডিউল অনুযায়ী কাজ শেষ করলেও প্রায় ১ কিলোমিটার সিডিউল বহির্ভত কাজ রয়ে যায়। উপজেলা প্রকৌশলী পারভেজ সরওয়ার হোসেন জানান, অসমাপ্ত কাজ আগামী অর্থ বছরে শেষ করা হবে। এ ১ কিলোমিটার ভাঙ্গা সড়কের অবস্থা এমন নাজুক গাড়ি চলাতো দূরের কথা হাটাও কষ্টকর। সে কারনে রমজান মাসকে সামনে রেখে এলাকাবাসীর দূর্ভোগ দূর করতে প্রতিদিন হাকিমিয়া পরিষদের প্রায় ৫০-৬০ জন সদস্য সড়ক মেরামতের কাজ করে যাচ্ছেন। এ সড়কের মেরামত কাজ সম্পন্ন হলে ধর্মপুর ও বাজালিয়া এলাকার ৫০ হাজার মানুষের চলাচলের দূর্ভোগ কমবে। তাছাড়া এলাকায় উৎপাদিত বিভিন্ন সবজিসহ নানা ধরনের কৃষিপন্য এ সড়ক দিয়ে উপজেলার বাজারগুলোতে বিক্রয় করতে নেয়া হয়। বিগত বর্ষা মৌসুমে পাহাড়ী ঢলে এ সড়ক বেহাল দশায় পরিণত হয়। এ সড়ক দিয়ে এলাকাবাসী ছাড়াও নিয়মিত যাতায়াত করে উত্তর সাতকানিয়া জাফর আহমদ চৌধুরী কলেজ, উত্তর সাতকানিয়া আলী আহমদ প্রাণহরি উচ্চ বিদ্যালয়, রসুলাবাদ ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা, দোহাজারী জামিজুরী আ. রহমান উচ্চ বিদ্যালয়, পূর্ব কাটগড় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাঙ্গু কিন্ডার গার্টেন, জামিজুরী আজিজিয়া রহমানিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসা, গাছবাড়িয়া সরকারী কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এলাকাবাসীর এ চরম দূর্ভোগ লাঘবে স্থানীয় জন প্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্ট সরকারী দপ্তরে বহু দেনদরবার করে সড়কে কিছু কাজ সম্পন্ন হলেও রয়ে যায় দূর্ভোগের এক কিলো মিটার পথ। অবশেষে এলাকার যুবক উত্তর কালিয়াইশ মলিয়াকুল নক্সবন্দিয়া মোজাদ্দেদীয়া হাকিমিয়া সুন্নিয়া পরিষদের সদস্য লেয়াকত আলী, আবু সৈয়দ, হাসমত আলী, আরজু, শামীম, সাকিব, মানিক, ইসমাইল, জামাল ও মামুন মিলে উদ্যোগ নেন কারো মুখাপেক্ষী না হয়ে নিজেদের সমস্যার সমাধান নিজেরাই করবেন বলে। যেমনি কথা তিমনি কাজ। গত বুধবার থেকে এসব যুবক দল বেধে নেমে শুরু করে দিলেন সড়ক মেরামতের কাজ। সড়ক মেরামত কাজে কর্মরত লেয়াকত আলী জানান, রোলার দিয়ে চাপা দিতে পারলে চলাচল আরো বেশী আরামদায়ক হত কিন্তু চেষ্টা করেও রোলার পাওয়া যায়নি। তিনি আরো জানান, এ পর্যন্ত এলাকাবাসীর সহযোগিতা ছাড়াও আমাদের পরিষদের তহবিল থেকে প্রায় ৪০ হাজার টাকার মত ব্যয় হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*