ব্রেকিং নিউজ
Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | লোহাগাড়া সদরে নুরুচ্ছফা আধুনগরে আইয়ুব মিয়া ও আমিরাবাদে নুরুল আলম চেয়ারম্যান নির্বাচিত

লোহাগাড়া সদরে নুরুচ্ছফা আধুনগরে আইয়ুব মিয়া ও আমিরাবাদে নুরুল আলম চেয়ারম্যান নির্বাচিত

111

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়া সদর, আমিরাবাদ ও আধুনগর ইউনিয়নে ২১ সেপ্টেম্বর উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। লোহাগাড়া সদরে নুরুচ্ছফা চৌধুরী, আধুনগরে মোঃ আইয়ুব মিয়া ও আমিরাবাদে কারাবন্দী জামায়াত নেতা কাজী নুরুল আলম চৌধুরী বেসরকারীভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার আল মামুন জানিয়েছেন, লোহাগাড়ার নুরুচ্ছফা চৌধুরী (তাল গাছ) ভোট পেয়েছেন ৪ হাজার ৫৭৩। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি শাহাব উদ্দিন চৌধুরী (সিএনজি) ভোট পেয়েছেন ৩ হাজার ১৩৫।

আধুনগরে আইয়ুব মিয়া (টেবিল ফ্যান) ভোট পেয়েছেন ৫ হাজার ৩০। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আবু নাছের চৌধুরী (সিএনজি) ভোট পেয়েছেন ৪ হাজার ৪৯১।

আমিরাবাদে কাজী নুরুল আলম চৌধুরী (পাগড়ী) ভোট পেয়েছেন ৪ হাজার ৬৬৫। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তফিজুর রহমান চৌধুরী (সাহেবী টুপি) ভোট পেয়েছেন ৩ হাজার ২৭২।

জানা যায়, ১৮ বছর পর লোহাগাড়ায় ও ১২ বছর পর অপর দু’ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচন চলাকালীন সময়ে এম এইচ নুরুল আলম চৌধুরী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে জনৈক মেম্বার পদপ্রার্থী তার সমর্থকদের নিয়ে ব্যালট পেপার ছিনতাই চেষ্টা করলে কিছুক্ষণের জন্য নির্বাচন কার্যক্রম বন্ধ ছিল। এছাড়া অন্য কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার সংবাদ পাওয়া যায়নি। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মত। প্রতি কেন্দ্রে মহিলা ভোটারের উপস্থিতি ছিল পুরুষ ভোটারের চেয়ে বেশী।

আমিরাবাদে ১১ জন, লোহাগাড়া সদরে ৫ জন ও আধুনগরে ২ জন প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করায় এলাকাবাসীর দৃষ্টি ছিল আধুনগর ইউনিয়নের প্রতি। এ ইউনিয়নে হাড্ডাহাড্ডি প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়। আমিরাবাদে মুক্তিযোদ্ধা মোস্তফিজুর রহমান চৌধুরী ও জামায়াতের মধ্যে সরাসরি ভোট যুদ্ধ হয়। বিজয়ী কাজী নুরুল আলম চৌধুরী নির্বাচনী তপশীল ঘোষণার পর চট্টগ্রাম শহরে পুলিশের হাতে আটক হয়ে জেলে রয়েছেন। তার বিরুদ্ধে ৭টি মামলা রয়েছে বলে লোহাগাড়া থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*