ব্রেকিং নিউজ
Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | লোহাগাড়ায় ফুটপাত দখল করে গাড়ির স্ট্যান্ড ও ভাসমান দোকান

লোহাগাড়ায় ফুটপাত দখল করে গাড়ির স্ট্যান্ড ও ভাসমান দোকান

116

এলনিউজ২৪ডটকম : চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের লোহাগাড়া উপজেলা সদরের বটতলীতে রাস্তার দু’পাশ দখল করে অবৈধ বাস-সিএনজি অটোরিক্সা স্ট্যান্ড ও ভাসমান দোকানপাটসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। বিভিন্ন ব্যবসার শত শত অস্থায়ী দোকান দখল করে নিয়েছে সড়কের ফুটপাত। অন্যদিকে ফুটপাতে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং করা হয়। ফলে ফুটপাতে সাধারণ পথচারীদের হাঁটা-চলায় চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয়। এছাড়াও সরু হয়ে থাকা মহাসড়কে প্রতিনিয়ত যানজট লেগেই থাকে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সড়কের দু’পাশের ফুটপাত দখল করে শতাধিক বিভিন্ন ব্যবসার দোকানসহ সিএনজি, অটোরিক্সা, রিক্সা, জিপ, মাহেন্দ্রা, হাইয়েস, মাইক্রোর স্ট্যান্ড ও গাড়ির গ্যারেজের দখলে রয়েছে। কিছু জায়গায় সন্ধ্যাবেলায় বাজার বসে। ফলে পথচারীরা হাঁটা-চলায় ঝুঁকি নিয়ে ফুটপাতের পরিবর্তে মহাসড়ক ব্যবহার করছে। ফলে বটতলী পয়েন্টে যানজট স্থায়ী রূপ নিয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার এই যানজট আরো চরম আকার ধারণ করে।

জানা গেছে, সড়কের দু’পাশের ফুটপাতের দোকানদার ও সিএনজি অটোরিক্সার চালকরা স্থানীয় প্রভাবশালীদের অর্থ দিয়ে ফুটপাতের জায়গার দখল নিয়েছে। দৈনিক ১০০- ১৫০ টাকা ভাড়া দিয়ে ব্যবসা করেন ফুটপাতের দোকানদাররা।

দূরপাল্লার গাড়ির চালকরা জানান, মহাসড়কের বটতলী স্টেশনের দু’পাশে এতোবেশি দোকানপাট ও গাড়ির স্ট্যান্ড গ্যারেজ গড়ে উঠেছে যে প্রতিনিয়ত অত্যন্ত ঝুঁকির মধ্যে গাড়ি চালাতে হয়। সড়কটির দু’পাশ অবৈধ দখল উচ্ছেদ হলে যানজটমুক্ত ও দুর্ঘটনা হ্রাস পাবে। তারা অভিযোগ করে বলেন, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী এ সড়ক দিয়ে গেলে বা এখানে পথসভা করলে সড়কের দু‘পাশের ফুটপাত আগ থেকে পরিষ্কার হয়ে যায়। এ সময়ে মহাসড়কে দেখা যায় না অবৈধ সিএনজি টেক্সি ও অটোরিক্সা। তিনি চলে গেলে আবার সড়কের দু‘পাশের ফুটপাত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও গাড়ির স্টেশন-গ্যারেজ গড়ে উঠে। মহাসড়কে চলা শুরু করে অবৈধ গাড়ি।

আরকান সড়ক পরিবহন ইউনিয়নের সাবেক এক নেতা জানান, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের লোহাগাড়া সদরের বটতলী এলাকার ফুটপাতে বিভিন্ন যানবাহনের গাড়ির স্ট্যান্ড-গ্যারেজ এবং দোকানপাট গড়ে উঠার কারণে যানজট ও দুর্ঘটনা লেগেই আছে।

দোহাজারী হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মিজানুর রহমান জানান, কিছুদিন পূর্বে লোহাগাড়া বটতলী মোটর ষ্টেশনের দু’পাশে ফুটপাত দখল করে অবৈধভাবে গড়ে উঠা গাড়ির স্ট্যান্ড ও ভাসমান দোকান উচ্ছেদ করেছিলাম। অভিযানের কয়েকদিন পরে তা আবারো দখল হয়ে গেছে। ফুটপাত দখলমুক্ত রাখতে স্থানীয় প্রশাসনের সাথে নিয়ে যৌথভাবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান তিনি।

লোহাগাড়া বটতলী মোটর ষ্টেশনের দু’পাশে ফুটপাত বেদখল হওয়ার কথা স্বীকার করে ট্রাফিক ইনচার্জ মোঃ মুজিবুর রহমান জানান, আমরা প্রতিনিয়ত ফুটপাত দখলমুক্ত রাখতে অভিযান পরিচালনা করছি। কিন্তু পুণরায় দখল হয়ে যায়। এ ব্যাপারে তিনি লোহাগাড়া উপজেলা প্রশাসনকে সাথে নিয়ে মহাসড়কের দু’পাশে ফুটপাত দখলকারীদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করবেন বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*