ব্রেকিং নিউজ
Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | লোহাগাড়ার এমকে গেষ্ট হাউজ মালিক পুলিশ পরিচয়ে বডারকে মারধর ও টাকা আদায়ের অভিযোগ : আটক ২

লোহাগাড়ার এমকে গেষ্ট হাউজ মালিক পুলিশ পরিচয়ে বডারকে মারধর ও টাকা আদায়ের অভিযোগ : আটক ২

40

এলনিউজ২৪ডটকম : লোহাগাড়া বটতলী মোটর ষ্টেশনে এম. কে গেষ্ট হাউসের মালিক মোঃ রাহাত উদ্দিন (৩০) কর্তৃক পুলিশ পরিচয় দিয়ে দু’জন উপজাতী বডারকে মারধর করে টাকা আদায়ের অভিযোগে লোহাগাড়া থানায় ১১ জুলাই মামলা হয়েছে।

পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে আদায়কৃত টাকা ও ব্যাংক চেক জব্দ করেছেন। এ সংক্রান্ত বোডিং’র দু’কর্মচারীকে আটক করা হয়েছে। মালিক ও তার পিতা পলাতক রয়েছে। এজাহারে মালিক রাহাত উদ্দিন (৩০), তার পিতা জাকির হোসেন (৫৫), কর্মচারী মোঃ শাহাদত হোসেন (২২) ও মোঃ নেজাম উদ্দিন (৩০) কে আসামী করা হয়েছে।

মামলার বাদী পার্বত্য লামার পশ্চিম বাইশরীর মৃত চাং অংগ মার্মার পুত্র মংম্রাসিং মার্মা।

অভিযোগে উল্লেখ করেছেন তিনি ও তার স্ত্রীর বড় বোন গত ৮ জুলাই দুপুরে এম কে টাওয়ারের এ বোডিং’র ৬নং কক্ষ ভাড়া নেন। এ সময় হঠাৎ দরজার কড়া নেড়ে রাহাত ও অন্যান্যরা এ মহিলা তার স্ত্রী কিনা জানতে চান। তিনি মহিলার চিকিৎসার জন্য লোহাগাড়ায় আসেন এবং ডাক্তারকে না পেয়ে বোডিং এ অবস্থান করছেন বলে তাদেরকে জানান এবং মহিলা তার স্ত্রী বলে প্রকাশ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রাহাত ও অন্যান্যরা পুলিশ পরিচয় দিয়ে তাকে মারধর করেন এবং ৫০ হাজার টাকা দাবী করেন। তিনি ভয়ে নগদ ১৮ হাজার টাকা ও ব্যাংকের ২টি চেক যথাক্রমে ১০ ও ৫ হাজার টাকা মিলে মোট ৩৩ হাজার টাকা দেন এবং অবশিষ্ট টাকা পরে দেয়ার প্রতিশ্র“তি দেন। এ ঘটনা কাউকে জানালে তাকে প্রাণে মারার ও মামলায় জড়িয়ে দেয়ার হুমকী প্রদান করেন বলেও প্রকাশ।

পরবর্তীতে বাদী বিষয়টি এলাকার লোকজনের সাথে পরামর্শ করে দু’দিন পর লোহাগাড়া থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলে মালিক রাহাত উদ্দিন ও জাকের হোসেন পালিয়ে যায়। অভিযুক্ত অপর দু’জনকে আটক করার পর তল্লাশী চালিয়ে আদায়কৃত টাকা ও চেক উদ্ধার করা হয়।

লোহাগাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শাহজাহান জানিয়েছেন রাহাতের বিরুদ্ধে ইতোপূর্বেও এ ধরণের বহু অভিযোগ রয়েছে। সে কৌশলে বিভিন্ন সময়ে অনেক বডারের কাছ থেকে টাকা আদায় ও নাজেহাল করেছে। এ ব্যাপারে নিবিড় তদন্তক্রমে দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*