ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | রমজানে জালনোট প্রতিরোধে কঠোর নজরদারী

রমজানে জালনোট প্রতিরোধে কঠোর নজরদারী

Taka_Jal20150625200215

রমজানে জালনোট প্রতিরোধে নোট জালকারী চক্রের উপর কঠোর নজরদারীসহ অভিযান পরিচালনা করতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে ব্যাংকের জাননোট প্রতিরোধ সংক্রান্ত সভায় এ আহ্বান জানানো হয়।

ঈদকে সামনে রেখে রমজান মাসে রাজধানীসহ সারাদেশের কেনাকাটা বেড়ে যায়। এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সক্রিয় হয়ে উঠে জাল নোট কারবারিরা। তাই নোট জালকারী চক্রের পাশাপাশি জামিনে থাকা নোট জালকারী চক্রের উপর নজরদারী জোরদার করতে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী ও গোয়েন্দা সংস্থাকে অনুরোধ করা হয়।

সভায় জানানো হয়, আসল ব্যাংক নোট চিনতে ও জালনোট প্রতিরোধে জনসচেতনতা বাড়াতে ১০টি উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। একই সঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক জালনোট প্রতিরোধে বিভিন্ন নির্দেশনা যথাযথভাবে পরিপালন কার্যকরভাবে নিশ্চিত করার জন্য তফসিলি ব্যাংকগুলোকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

জাল নোট প্রতিরোধে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নেওয়া উদ্যোগের মধ্যে রয়েছে- আসল নোটের নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য সংবলিত এক লাখ পিস হ্যান্ডবিল বিতরণ। একই হ্যান্ডবিল ব্যাংকগুলোর উদ্যোগে প্রয়োজন মতো ছাপিয়ে তা প্রচার করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আর ১০০, ৫০০ ও ১০০০ হাজার টাকা মূল্যমানের নোট বেশি জাল হয়। এ কারণে হ্যান্ডবিলের পাশাপাশি এসব নোটের নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য বিষয়ক পোস্টার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, ইউএনও অফিস, ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের অফিসে নেট দিয়ে আবদ্ধ নোটিশ বোর্ডে টানানোর ব্যবস্থা করা হবে। সচেতনতা বাড়াতে রমজান মাসজুড়ে প্রতি সপ্তাহে আসল ব্যাংক নোটের নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য সংবলিত বিজ্ঞাপন অন্তত পাঁচটি পত্রিকায় প্রচার করা হবে। এছাড়াও টিভি চ্যানেলে এ সংক্রান্ত সংক্ষিপ্ত ভিডিওচিত্র প্রচারের উদ্যোগ নেয়া হয় সভায়।

অন্যদিকে ব্যাংক ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই`র মাধ্যমে এবারও দেশের গুরুত্বপূর্ণ শপিং মলগুলোতে প্রয়োজনীয় সংখ্যক জাল নোট শনাক্তকারী মেশিন দেবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

একই সঙ্গে গত বছরের রমজানে ঢাকাসহ সারাদেশের বড়-বড় মার্কেটে সরবরাহ করা ১৩০টি মেশিন কাজে লাগানোর জন্যও বলা হয়েছে। সারাদেশে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে বিভিন্ন সময়ে পাঁচ শতাধিক জাল নোট শনাক্তকারী মেশিন দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এসব মেশিনের পাশাপাশি নতুন চাহিদা দিলে তাও সরবরাহ করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মো. আবদুর রহিমের সভাপতিত্বে সভায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, গোয়েন্দা সংস্থা, ব্যবসায়ী প্রতিনিধি ও তফসিলি ব্যাংকের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*