Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | মুক্তিপণ দিয়ে মালয়েশিয়া থেকে এক যুবকের লোহাগাড়ায় প্রত্যাবর্তনের অভিযোগ

মুক্তিপণ দিয়ে মালয়েশিয়া থেকে এক যুবকের লোহাগাড়ায় প্রত্যাবর্তনের অভিযোগ

29

মোঃ জামাল উদ্দিন : মালয়েশিয়ায় দালালদেরকে মুক্তিপণ দিয়ে লোহাগাড়ায় এক যুবক প্রত্যাবর্তন করেছেন। এ ব্যাপারে তিনি তিন জনকে আসামী করে গত ১২ মে আদালতে মামলা করেছেন। অভিযোগটি এফআইআর হিসেবে গণ্য করার জন্য আদালত লোহাগাড়া থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন।

অভিযোগে প্রকাশ, লোহাগাড়ার বড়হাতিয়া দুর্লভের পাড়ার মৃত ইউসুফ আলীর পুত্র ছিদ্দিক আহমদ (৪৫) তার প্রতিবেশী ও টেকনাফের ব্যবসায়ী মোঃ ইলিয়াছ, তার পুত্র মালয়েশিয়া প্রবাসী মোঃ তারেক ও কক্সবাজারের শাহ মিম আক্তার গত মাসে তাকে মালয়েশিয়া ভিসা দিয়ে তারেকের নিকট প্রেরণ করেন। সেখানে তারেক ছিদ্দিককে চাকুরী না দিয়ে স্থানীয় দালালদের হাতে তুলে দেন। দালালরা তাকে কুয়ালালামপুর থেকে থাইল্যান্ডের সীমানায় নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে তাকে বেঁধে বেদম প্রহার করে ও কিডনী নেয়ার চেষ্টা চালায়। কাকুতী মিনতি করে ছিদ্দিক তাদেরকে ছেড়ে দেয়ার অনুরোধ করেন। দালালরা তার কাছ থেকে দু’লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করেন। কক্সবাজারের ব্যাংক এশিয়া শাখায় শাহ মিমের ০৪৬৩৪০০৫৮৫০ নং হিসাবে ছিদ্দিকের স্ত্রী ১ লাখ ২০ হাজার টাকা জমা দেন। জমার বিষয় নিশ্চিত হয়ে দালালরা তাকে পুণরায় কুয়ালালামপুর ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। ছিদ্দিক রিটার্ন টিকেটে পুণরায় দেশে ফিরে আসেন। তার দাবী ইলিয়াছ ও অন্যান্যরা আন্তঃদেশীয় মানবপাচারের সদস্য। ইতোপূর্বেও ইলিয়াছ ও তারেক মিলে দেশের বহু লোককে টেকনাফ থেকে মালয়েশিয়া পাটিয়েছেন। এ ব্যাপারে ইলিয়াছের সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। ছিদ্দিক বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন। ইলিয়াছ ও এলাকার সন্ত্রাসীচক্র তাকে বিভিন্ন মামলায় ফাসানো ও প্রাণে মারার হুমকী দিচ্ছেন বলে ছিদ্দিক জানিয়েছেন। লোহাগাড়া থানার এসআই লিটন জানিয়েছেন, মামলাটি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এ ঘটনাকে ধামাচাপা ও ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য প্রভাবশালীরা তৎপরতা শুরু করে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। নীরহ ছিদ্দিক এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*