Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | মাশরাফি দেশের সবচেয়ে বড় সম্পদ : প্রধানমন্ত্রী

মাশরাফি দেশের সবচেয়ে বড় সম্পদ : প্রধানমন্ত্রী

3-10-678x381

নিউজ ডেক্স : ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাকে দেশের বড় সম্পদ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আমরা ক্রিকেটে কত ভালো করছি, মাশরাফি সেখানে নড়াইলের।’ নড়াইলবাসীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘দেশের সবচেয়ে বড় সম্পদই তো আপনাদের, মাশরাফি।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কতটা ক্রীড়াপাগল সেটা নতুন করে বলাইবাহুল্য। দেশের মাঠে খেলা হলে প্রধানমন্ত্রীর মাঠে উপস্থিত যাওয়াই সেটা প্রমাণ করে। নিয়মিত ক্রীড়াবিদদের খোঁজ-খবর রাখা থেকে শুরু করে ক্রীড়া উন্নয়নে সর্বোচ্চ অবদান প্রধানমন্ত্রীর। কয়েকদিন আগেও ইনজুরিতে এশিয়া কাপ শেষ করে দেশে ফিরে আসা তামিম ইকবালের খোঁজ নেন তিনি সরাসরি ফোন করে। প্রয়োজনে বিদেশে গিয়ে হলেও চিকিৎসা করানোর পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি। সেই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী এবার অধিনায়ক মাশরাফিকে উল্লেখ করলেন দেশের সবচেয়ে বড় সম্পদ হিসেবে।

‘উন্নয়নের অভিযাত্রায় অদম্য বাংলাদেশ’- শীর্ষক রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বাণিজ্য মেলার মাঠে আয়োজিত তিন দিনব্যাপী চতুর্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলা-২০১৮ উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। আজ বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ মেলার উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই থিম সং পরিবেশন করা হয়। এ ছাড়া গত সাড়ে নয় বছরে উন্নয়নের একটি ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হয়। মেলা উদ্বোধনের পর বরগুনা জেলার আমতলী, বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট, নড়াইল জেলা ও রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার উপকারভোগীদের সঙ্গে কথা বলেন শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

ভিডিও কনফারেন্সে নড়াইলের লোহাগড়ার একজন উপকারভোগীর কথার প্রসঙ্গ তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘এই যে তার মনের যে চেতনা, কারও কাছে হাত পেতে চলব না। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস, তাকে মানুষের কাছে ভিক্ষা করে চলতে হতো। আজকে তার পুনর্বাসন হয়েছে এবং নিজের কাজ নিজে করে খেতে পারছেন। এটাই সব থেকে বড় কথা। এভাবে যেন আমরা বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারি।

তিনি বলেন, কোনো মানুষকে যেন কারও কাছে হাত পেতে বা ভিক্ষা করে চলতে না হয়। সবাই যেন নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারে, সেটাই আমাদের দায়িত্ব। সেটাই আমরা করে যাচ্ছি এবং আমর তা করে যাব। দেশকে সেভাবে গড়ব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*