ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | বুধবার মীর কাসেমের রিভিউ শুনানি

বুধবার মীর কাসেমের রিভিউ শুনানি

Mir-Kashem-md20160823105621

নিউজ ডেক্স : একাত্তরে সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর রিভিউ আবেদন শুনানির জন্য বুধবার (২৪ আগস্ট) দিন ধার্য রয়েছে।

আসামিপক্ষের সময়ের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের পাঁচ সদস্যের বিচারপতির নেতৃত্বে রিভিউ শুনানির জন্য ২৪ আগস্ট নির্ধারিত দিনে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

আপিল বিভাগের ওই বেঞ্চের অন্যান্য বিচারপতিরা হলেন- বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার ও বিচারপতি মো. বজলুর রহমান।

গত ২৫ জুলাই মীর কাসেম আলীর রিভিউ শুনানি পিছিয়ে ২৪ আগস্ট দিন ঠিক করেন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ। ওই দিন আদালতে মীর কাসেম আলীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

মীর কাসেমের প্রধান আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন আদালতের কাছে প্রস্তুতির জন্য দুই মাস সময় চান। অপরদিকে সময় চেয়ে করা আবেদনের বিরোধীতা করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত ২৪ আগস্ট দিন ঠিক করে আদেশ দেন।

পরে আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, প্রস্ততির জন্য আমরা দুই মাস সময় চেয়েছিলাম। আদালত এক মাস দিয়েছে। ২৪ অাগস্ট শুনানির তারিখ ঠিক করে দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম সাংবাদিকদের বলেন, আমি প্রথমে বৃহস্পতিবার শুনানির আর্জি জানিয়েছিলাম, পরে আগস্টের প্রথম সপ্তাহে শুনানির দিন নির্ধারণের জন্য আর্জি জানিয়ে চরম বিরোধীতা করার পরেও আদালত ২৪ আগস্ট দিন ঠিক করেছেন।

এর আগে রাষ্ট্রপক্ষের আনা আবেদনের প্রেক্ষিতে আপিল বিভাগের চেম্বার কোর্ট বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকি গত ২১ জুন রিভিউ শুনানির জন্য ২৫ জুলাই শুনানির দিন ধার্য করেছিল। গত ১৯ জুন আপিল বিভাগের ফাঁসির রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে আবেদন করেন মীর কাসেম আলী। ওই আবেদনে ১৪টি আইনগত যুক্তি তুলে ধরে তাকে বে-কসুর খালাস দেয়ার আবেদন জানানো হয়।

জামায়াতে ইসলামীর নির্বাহী পরিষদ সদস্য মীর কাসেম আলীকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে দেয়া মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখে দেয়া আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় গত ৬ জুন প্রকাশ করা হয়। মীর কাসেম আলীর আপিল মামলায় রায় প্রদানকারী প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির আপিল বেঞ্চের রায়ে স্বাক্ষরের মধ্য দিয়ে তা প্রকাশিত হলো। এটি আপিলে সপ্তম মামলা যার চূড়ান্ত রায় হলো।

নিয়ম অনুযায়ী আপিল বিভাগ থেকে মীর কাসেম আলীর মৃত্যুদণ্ডের পূর্ণাঙ্গ রায় মামলাটির বিচারিক আদালত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়। এর ভিত্তিতে মীর কাসেম আলীর মৃত্যু পরোয়ানা জারি করে এর পূর্ণাঙ্গ রায় কারাগারসহ সংশ্লিষ্ট অফিসে পাঠান ট্রাইব্যুনাল। কারাগারে মীর কাসেম আলীকে মৃত্যু পরোয়ানা ও রায় পড়ে শোনানো হয়। রায় অবগত হওয়ার পর রায় পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন জানানোর জন্য ১৫ দিন সময় রয়েছে। সে অনুযায়ী মীর কাসেম আলী রিভিউ করেছেন।

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, রিভিউ শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষ রায় বহালের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরবে। তবে ফৌজদারি মামলায় রিভিউতে প্রতিকার পাওয়ার সুযোগ কম বলে তিনি জানান।

গত ৮ মার্চ মীর কাসেম আলীর মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখে সংক্ষিপ্ত রায় ঘোষণা করেছিলেন আপিল বিভাগ। গত ৬ জুন পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হয়। এর আগে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ২০১৪ সালের ২ নভেম্বর মীর কাশেম আলীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়ে রায় ঘোষণা করেন ট্রাইব্যুনাল।

মানবতাবিরোধী অপরাধের এ মামলায় ট্রাইব্যুনালের আদেশে ২০১২ সালের ১৭ জুন মীর কাশেম আলীকে গ্রেফতার করা হয়। তখন থেকেই তিনি কারাগারে রয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*