Home | উন্মুক্ত পাতা | বীরাঙ্গনা নয় “নারী মুক্তিযোদ্ধা” উপাধি চাই

বীরাঙ্গনা নয় “নারী মুক্তিযোদ্ধা” উপাধি চাই

40293685_2203136646585941_677729986584510464_n

ফিরোজা সামাদ : ইতিহাস বলে দেয় যুগে যুগে কৃষক অান্দোলন, তেভাগা অান্দোলন ও বৃটিশ বিরোধী অান্দোলন থেকে শুরু করে বাহান্ন থেকে একাত্তর পর্যন্ত পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যে সকল অান্দোলন হয়েছে নারীরা যার যার অবস্হান থেকে সমানভাবে অংশগ্রহণ করে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, ভুলুন্ঠিত হয়েছে নারীত্ব ও মাতৃত্ব । দেশ প্রেমে উদ্ভুদ্ধ হয়ে অকাতরে জীবন দিয়েছেন কতো নারী । যার ধারাবাহিকতা এখনো বহমান,চলমান। অথচ, সেই ত্যাগী নারীদের সম্মান জনক স্বীকৃতি দেয়া হয়নি অাজো পর্যন্ত ।

একাত্তরে পুরুষরা অস্ত্রহাতে যুদ্ধ করে জীবন দিয়ে দেশ স্বাধীন করেছে অার নারীরা রাজাকার, পাকিস্তানিদের হাতে বন্দিনী হয়ে, নিজেদের সম্ভ্রম হারিয়ে নির্যাতিতা হয়ে এই দেশ স্বাধীন করেছেন। কোনো কেনো ক্ষেত্রে সম্মুখ যুদ্ধেও অবতীর্ণ হয়েছেন।

যুদ্ধোত্তীর্ণ দেশের চিকিৎসা সেবার জন্য ডঃ ডেভিস বাংলাদেশের নির্যাতিতা নারীদের সংখ্যা চার লক্ষ ত্রিশ হাজার বলে উল্লেখ করেছেন। কিন্তু ; বাস্তবতায় তার থেকেও অনেক বেশী হবে। সবাই যখন বলছে দুইলক্ষ, তখন প্রশ্ন জাগে না মনে, বাকীরা কোথায় গেলো ? কেনো তাদের অবদানকে অস্বীকার করা হচ্ছে ?

কারন, অনেকেই আত্মহত্যা করেছে,অনেককে পাকিস্তানি আর্মিরাই মেরে ফেলেছে, অনেক নারী পাগল হয়ে গিয়েছিলো, আবার অনেক মেয়ে গ্রামে ফিরে যেতে পারেনি,ভিক্ষা করত অনেকে, অনেক বাবা মা ঘটনাটি লুকিয়েছেন। কাউকে কাউকে ভারতে পাঠিয়েছেন মান সম্মান ও বিবাহ নিশ্চিত করনের জন্য অাবার অনেক নারীকেই বাবা, মা,স্বামী সমাজের ভয়ে লজ্জায় ফিরিয়ে দিয়েছে এবং তাদের স্থান হয়েছে দেশ বিদেশের নিষিদ্ধ পল্লীতে।

কী অাশ্চর্য অামাদের নীতি ? কী অাশ্চর্য অামাদের দেশ ? অার কী বৈষম্য শ্রেনীভেদের ? পুরুষ যুদ্ধ করে পেলো বীর মুক্তিযোদ্ধার খেতাব, অার নারী যুদ্ধ করে পেলো বাঁকা হাসি মিশ্রিত বীরঙ্গনা খেতাব ? বীরাঙ্গনার অাভিধানিক অর্থ বীরনারী। কিন্তু ; দেখা গেছে এই বীর নারীদের কতো তুচ্ছতাচ্ছিল্য করে বীরাঙ্গনা নামে ডাকা হতো এবং হচ্ছে।

তাই অার বীরঙ্গনা খেতাব নয়, বীর নারীও নয়, অামরা এই বিজয়ের মাসে স্বাধীনতাযুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত নারীদের শুধু ” নারী মুক্তিযোদ্ধা ” স্বীকৃতি চাই । নারীকে ” নারী মুক্তিযোদ্ধার ” স্বীকৃতি দেয়া হোক। এই বিজয়ের মাসে এটাই হোক অামাদের একমাত্র চাওয়া। অাসুন অামরা কণ্ঠে কণ্ঠ মেলাই, নারীর যোগ্য সম্মান ফিরিয়ে দিতে , নারীর দাবী অাদায়ে !!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*