ব্রেকিং নিউজ
Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | বঙ্গবন্ধু এক অসাম্প্রদায়িক দেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন : লোহাগাড়ায় যুবমন্ত্রী ড. বিরেন সিকদার

বঙ্গবন্ধু এক অসাম্প্রদায়িক দেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন : লোহাগাড়ায় যুবমন্ত্রী ড. বিরেন সিকদার

190

এলনিউজ২৪ডটকম : জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন। সে স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। তাঁরই সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা এ দেশকে মধ্যম আয়ের দেশ ও সর্বশেষ উন্নত দেশের স্বপ্ন দেখে যাচ্ছেন। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। কোন স্থানে স্থির হয়ে বসে নেই। বর্তমানে নিু মধ্য আয়ের দেশের পরিণত হয়েছে। জাতি আজ তাঁর নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ। এ দেশে জঙ্গিবাদের স্থান নেই। ভারত-বাংলাদেশ দুটি ধর্ম নিরপেক্ষ দেশ। মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে ভারতের অবদান অপরিসীম। বাংলাদেশের মুসলমান-হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান মিলেমিশে বসবাস করছেন। তারা প্রকৃতির কাছে নিজেদের জীবনমান উন্নয়নের শিক্ষা গ্রহণ করেছেন। জাতিরজনকের কন্যা বলেছেন, ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। ১৫ নভেম্বর বিকেলে লোহাগাড়ার চরম্বা বিবিবিলা শান্তিবিহার প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত কঠিন চীবন দান ও বৌদ্ধ আন্তর্জাতিক শান্তি পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী ড. বীরেন সিকদার এসব কথা বলেছেন। তাকে অল ইন্ডিয়া ভিক্ষু সংঘ কর্তৃক বৌদ্ধ শান্তি পুরস্কারে পুরস্কৃত করা হয়।

ভারতের সংঘ নায়ক ড. ধর্ম বিরীয় মহাথের অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম- ১৫ আসনের সংসদ সদস্য প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজাম উদ্দিন নদভী, কুষ্টিয়া- ৪ আসনের সংসদ সদস্য আবদুর রউফ, ভারত থেকে আগত যথাক্রমে লোকসভার সংসদ সদস্য তোপস্টান চিয়াঙ্গ, সংসদ সদস্য রাজেশ ভার্মা, সংসদ সদস্য ড. সুনিল বালিরাম গাইকোআট, সংসদ সদস্য মুকেশ রাজপুত, সংসদ সদস্য অজয় নিশাদ প্রমুখ।

লোহাগাড়া-সাতকানিয়া ভিক্ষু সংঘের সভাপতি শীলানন্দ ভিক্ষু উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন। এডভোকেট রাখাল চন্দ্র বড়–য়া স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

এর আগে কঠিন চীবর দানোৎসবে প্রথম পর্বে লক্ষণেরখীল বিহারের অধ্যক্ষ ধর্মপ্রিয় মহাথের সভাপতিত্ব করেন। বক্তব্য রাখেন যথাক্রমে বিজয় বড়–য়া, মাষ্টার গোপাল বড়–য়া, শ্রীনিবাস দাশ সাগর, চরম্বা ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যাপক সাদত উল্লাহ, সাইফুল আলম ও কাইছার আহমদসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

জানা যায়, অল ইন্ডিয়া ভিক্ষু সংঘ আয়োজিত বৌদ্ধ শান্তি পুরস্কাটি মাদার থেরেসা, ভারতের প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এজে আবদুল কালাম ও বিদগ্ধজনেরা পেয়েছিলেন। এবারে ভারত-বাংলাদেশের মৈত্রিকে সমুন্নত রাখতে বাংলাদেশে এটি প্রদান করা হয়েছে। এলাকার রকি বড়–য়া এ পুরস্কার প্রদান ও ভারতীয় অতিথিদেরকে বাংলাদেশে আনার জন্য মুখ্য ভূমিকা পালন করেছিলেন বলে প্রকাশ।

সমাবেশে ভারতের সহকারী হাই কমিশনার সোম নাথ সরকার, চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান, সাতকানিয়া সার্কেল এএসপি একেএম এমরান ভূঁইয়া, লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ ফিজনূর রহমান, লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি খোরশেদ আলম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোঃ সালাহ উদ্দিন হিরুসহ স্থানীয় বৌদ্ধ নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যান, সুধী, সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশের পক্ষ থেকে এলাকা ও বিবিবিলা বৌদ্ধ বিহারে উন্নয়নের জন্য কিছু দাবী পেশ করা হয়। মন্ত্রী তাৎক্ষণিকভাবে এলাকায় একটি মিনি ষ্টেডিয়াম স্থাপনের ঘোষণা দেন। তিনি লোহাগাড়া-সাতকানিয়ার এমপি’র সহযোগিতায় যথাসম্ভব উন্নয়নের আশ্বাস দেন। মন্ত্রী ও সফর সঙ্গীদেরকে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে কিছু উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়।

সমাবেশে বৌদ্ধ নর-নারী, দায়ক-দায়িকা ও ভিক্ষুবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। স্থানীয় এমপি প্রথম পর্বে সভাপতির হাতে একটি চীবর দান করেন। পরে বিহারের নবনির্মিত দালানের দার উদঘাটন করেন অতিথিবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*