ব্রেকিং নিউজ
Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে পদুয়া হাই স্কুলে তালা : ছাত্রদের বিক্ষোভ

ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে পদুয়া হাই স্কুলে তালা : ছাত্রদের বিক্ষোভ

368

এলনিউজ২৪ডটকম : ফুটবল খেলা সংক্রান্ত লটারীর ফলাফলে বিক্ষুদ্ধ একদল যুবক গত ৩০ জুলাই রাতে লোহাগাড়া পদুয়া হাই স্কুলে তালা লাগিয়ে দেয়ার পর ৩১ জুলাই সকালে ছাত্ররা মিছিল করেছে। ফলে এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। শিক্ষার্থীরা ক্লাস করতে পারেননি। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ছাত্রদের মিছিল ছত্রভঙ্গ করে দেয়। বিকেলে স্কুল কর্তৃপক্ষ তালা খুলে নিয়েছে বলে প্রধান শিক্ষক মাহমুদুর রহমান জানিয়েছেন।

জানা যায়, উপজেলা পর্যায়ে ৪৬তম বাংলাদেশ জাতীয় স্কুল ও মাদ্রাসা গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ২০১৭ এর আওতায় লোহাগাড়ার ৩টি ভ্যানুতে ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। ভ্যানুগুলো হল যথাক্রমে চুনতি, পদুয়া ও শাহপীর হাইস্কুল মাঠ। খেলায় তিন ভ্যানুতে যথাক্রমে পদুয়া হাইস্কুল, শাহপীর হাইস্কুল ও সেনেরহাট হাইস্কুল চ্যাম্পিয়ন হয়। ত্রি-মুখী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় গত ৩০ জুলাই খেলা অমিমাংসিতভাবে শেষে হয়। আজ ১ আগষ্ট জেলা পর্যায়ে উপজেলা হতে চ্যম্পিয়ন দলের অংশগ্রহণের দিন ধার্য রয়েছে। ফলে ৩১ জুলাই অবশ্যই ২টি দলের মধ্যে চুড়ান্ত খেলা অনুষ্ঠানের বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাহবুব আলম জানিয়েছেন, সময়ের স্বল্পতার জন্য ৩টি স্কুলের প্রধান শিক্ষকের অনুপস্থিতিতে রাতে লটারীর সিদ্ধান্ত হয়। এতে পদুয়া হাইস্কুল উত্তীর্ণ হতে পারেনি।

পদুয়া ইউপি চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন জানিয়েছেন, খবরটি জানার পর বিক্ষুদ্ধ যুবকরা এ ঘটনা ঘটায়। ছাত্ররা লটারীর ফলাফল বিধি বহির্ভূত দাবী করে মিছিল করে। ৩১ জুলাই সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর অফিসে পুণরায় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে জানানো হয় উপজেলা নির্বাহী অফিসের সিদ্ধান্ত না মেনে লোহাগাড়া উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক এসকে সামশুল আলম পুণরায় খেলা অনুষ্ঠানের ঘোষণা দেয়ায় অনবিপ্রেত ঘটনার মূল কারণ। পরে আলোচনার ভিত্তিতে আজ চুনতি হাই স্কুল মাঠে সেনেরহাট হাই স্কুল ও শাহপীর হাই স্কুল একাদশের মধ্যে ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। খেলায় শাহপীর স্কুল বিজয় হয়েছে বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে। তবে খেলার বিস্তারিত ফলাফল জানা যায়নি। এ ঘটনায় পদুয়া এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। যুবকরা স্কুলের ৩০ জোড়া বেঞ্চ ভাংচুর করেছে বলে প্রধান শিক্ষক জানিয়েছেন। তিনি আরো জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সিদ্ধান্তই চুড়ান্ত। এতে দ্বিমত পোষণের কোন সুযোগ নেই। আগামীকাল থেকে যথারীতি স্কুলে ক্লাস হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

সূত্র : সাংবাদিক মোঃ জামাল উদ্দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*