ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | প্রায় এক কোটি প্রবাসী ভোটার হচ্ছেন

প্রায় এক কোটি প্রবাসী ভোটার হচ্ছেন

Election-Commission_md20151010070729

প্রায় এক কোটি প্রবাসীকে ভোটার করার মত বৃহৎ ও জটিল কাজ হাতে নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এর আগেও বিভিন্ন কমিশনারদের আমলে প্রবাসীদের ভোটার করার ঘোষণা দিলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। এবার এটি বাস্তবায়ন হবে বলে জানা গেছে। ভোটার করার পর এসব ব্যক্তিদের জাতীয় পরিচপত্রও দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে ইসি সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম শনিবার সকালে টেলিফোনে জাগো নিউজকে বলেন, প্রায় এক কোটি প্রবাসীকে ভোটার করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে কমিশন। জটিল ও সময় সাপেক্ষ এই কাজটি শেষ করতে সবাইকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এজন্য বিদ্যমান আইন সংশোধনেরও প্রয়োজন হবে।

জানা যায়, বিশ্বের ১৫৭টিরও বেশি দেশে বসবাসকারী বাংলাদেশি এর আওতায় আসবেন। বিদেশে বাংলাদেশি দূতাবাসগুলোর মাধ্যমে ভোটার করা হবে তাদের। এজন্য ভোটার নিবন্ধন আইনেও প্রয়োজনীয় সংশোধনী আনার কাজ শুরু হয়েছে। প্রবাসে অবস্থানকারী বাংলাদেশিদের বিভিন্ন সংগঠনের দাবির পর প্রবাসীদের কথা চিন্তা করে এমন সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে ইসি। আর বাংলাদেশ দূতাবাসগুলোর অনুরোধে জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

ইসি সূত্র জানায়, ভোটার তালিকা হালনাগাদের মত পর্যায়ক্রমে প্রবাসীদের ভোটার করা হবে। এজন্য দেশ থেকে কারিগরি দল পাঠানো হবে।

ইসি কর্মকর্তারা আরো জানান, বিষয়টি কমিশন বৈঠকে জরুরি ভিত্তিতে উপস্থাপনের জন্য ৫ অক্টোবর জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের (এনআইডি) মহাপরিচালককে প্রয়োজনীয় কার্যপত্র উপস্থাপনের জন্য বলা হয়। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ এ নির্দেশ দেন।

ইসির সিনিয়র সহকারী সচিব মাহফুজা আক্তার স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত বিস্তারিত ফাইলসহ একটি চিঠি  জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালকের কাছে ইতোমধ্যে পাঠানো হয়েছে।

প্রবাসীদের পরিচয়পত্র দেয়া সংক্রান্ত ফাইলে ইসির অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেসুর রহমান লিখেছেন, বিভিন্ন দেশে অবস্থিত বাংলাদেশের দূতাবাসের মাধ্যমে এনআইডি কার্ড দেওয়ার জন্য অনুরোধ পাওয়া যাচ্ছে। বেশ কয়েকটি দূতাবাসের কর্মকর্তারাও এ বিষয়ে অনুরোধ করেছেন। এজন্য তিনি তার নোটে বিদ্যমান ভোটার নিবন্ধন আইন সংশোধনসহ বেশ কিছু প্রস্তাব তুলে ধরেন।

তাতে বলা হয়েছে, এনআইডির মাধ্যমে প্রবাসীদের জন্য অনলাইনে বায়োমেট্রিক সংগ্রহের ব্যবস্থা করা যেতে পারে। বিভিন্ন দেশে ছোট ছোট দল পাঠিয়ে হালনাগাদের মতো কার্যক্রম পরিচালনা করা যেতে পারে। পরে এই নোটে সম্মতি দিয়ে এনআইডি শাখাকে দ্রুত কার্যপত্র দেয়ার নির্দেশ দেন ইসি সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম।

ইসির ফাইলটি পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, ফাইলটিতে বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের মাধ্যমে পাসপোর্ট ইস্যু করা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য কমিশন বৈঠকের জন্য উপস্থাপন করা হচ্ছে। পাশাপাশি প্রবাসী বাঙালি কল্যাণ সমিতির এনআইডি প্রদানের বিভিন্ন দাবিও যুক্ত করা হয়েছে। কমিশন বৈঠকে উপস্থাপনের জন্য ফাইলটিতে বলা হয়েছে, বর্তমানে প্রায় এক কোটি প্রবাসী বাংলাদেশি ভোটার তালিকা ও জাতীয় নির্বাচনের প্রক্রিয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছেন। এজন্য বিষয়টি বিবেচনার জন্য ভোটার তালিকা ও জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন সম্পর্কিত সংশ্লিষ্ট আইন ও বিধিমালা পর্যালোচনা করতে বৈঠকে উপস্থাপন করা হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৮ সালে দেশের উচ্চ আদালত প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভোটাধিকার সংবিধান স্বীকৃত বলে ঘোষণা দিলেও দীর্ঘ ১৭ বছরে তাদের সে অধিকার বাস্তবায়ন করা হয়নি।

অথচ প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স জাতীয় প্রবৃদ্ধির ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ অবদান রেখে চলেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব অনুযায়ী, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সের পরিমাণ এক হাজার ৫৩১ কোটি মার্কিন ডলার। এটি আমাদের জাতীয় বাজেটের প্রায় অর্ধেকের সমান। নাগরিক হিসেবে প্রবাসীরা দেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখলেও জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকায় তাদের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক অধিকার ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারছেন না। পাশাপাশি দেশের নাগরিক সেবা থেকেও বঞ্চিত হচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*