ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | নীলক্ষেতে জাল সার্টিফিকেট-সরঞ্জামাদিসহ আটক-২

নীলক্ষেতে জাল সার্টিফিকেট-সরঞ্জামাদিসহ আটক-২

11857777_806364802817225_1167668216_n

ইরফান এইচ সায়েম : রাজধানীর নীলক্ষেত বকুশাহ মার্কেট থেকে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়সহ কয়েকটি বিশ^বিদ্যালয়ের জাল সার্টিফিকেট ও সরঞ্জামাদিসহ দুই দোকান মালিককে আটক করেছে নিউ মার্কেট থানা পুলিশ। এতে নেতৃত্ব দেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ড. এএম আমজাদ। বুধবার বিকেলে তাদেরকে থেকে আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন-মায়ের দোয়া উদয়ন প্রিন্টার্স এর মালিক আজগর ভূঁইয়া (২৬) ও মো. আবদুস সামাদ (৩২)। বর্তমানে তারা নিউ মার্কেট থানায় রয়েছে। জানা যায়, রাজধানীর নীলক্ষেতের ওই মার্কেটে ২০-৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের জাল সার্টিফিকেট তৈরি করা হয়। এমন তথ্যের ভিত্তিতে বুধবার বিকেলে নিউ মার্কেট থানা পুলিশ বেশকয়েকটি দোকানে তল্লাশি শুরু করে। এসময় মায়ের দোয়া উদয়ন প্রিন্টার্স নামের একটি দোকান থেকে জাল সার্টিফিকেট তৈরির বিভিন্ন সরঞ্জামাদি জব্দ করা হয়। এর মধ্যে রয়েছে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের নামে তৈরিকৃত জাল সার্টিফিকেট, মার্কসিট, আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সার্টিফিকেট ও মার্কসিট, ইনডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটির মার্কসসিট, ভারতের ব্যাঙ্গালোর বিশ^বিদ্যালয়সহ আরো বিদেশী কয়েকটি বিশ^বিদ্যালয়ের সার্টিফিকেট জাল তৈরি করণের সরঞ্জামাদি এবং দেশের বিভিন্ন কলেজ, বিশ^বিদ্যালয়, সরকারি সার্টিফিকেট, নকল করার ১৪টি ছোট ও ৬৩টি বড় প্লেটসহ বেশ কিছু সরঞ্জামাদি। এসময় পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে আটকৃতরা বলেন, তাদের এ কাজে সহযোগীতা করে বেশকয়েকটি দোকানদারসহ মোট ১৪ জন লোক। এছাড়াও, বাকুশাহ মার্কেটের ১নং গলির ফিরোজের দোকানসহ কয়েকটি দোকানও এমন আসাধু কাজে জড়িত বলেও তারা স্বীকার করে। এদিকে, জব্দ করা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জাল সির্টিফিকেটে দেখা যায় এটি হুবহু ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের সার্টিফিকেটের ন্যায় তৈরি। এর মধ্যে রয়েছে ইউনিভার্সিটির সার্টিফিকেটের ভেতরে জলছাপে দেয়া ছাগলের ছবিও এতে রয়েছে। এমনকি যে কাগজগুলো এখানে ব্যাবহার করা হয়েছে তাও ইউনিভার্সিটিতে ব্যাবহার করা মূল কাগজ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও পুলিশের ধারণা এই কাগজগুলো বিশ^বিদ্যালয়ের কোন কর্মকর্তা-কর্মচারীর মাধ্যমে তারা নিয়ে থাকে। নতুবা এমন কাগজ মার্কেটে পাওয়া অসম্ভব। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ড. এএম আমজাদ বলেন, আটকতৃতদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে নিউ মার্কেট থানায় মামলা করা হবে। একই সাথে এ কাজে বিশ^বিদ্যালয়ের কেউ জড়িত কিনা তাও খতিয়ে দেখা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*