ব্রেকিং নিউজ
Home | লোহাগাড়ার সংবাদ | দরবেশহাট ডিসি সড়ক পথে পাচার হচ্ছে কাঠ ও বাঁশ

দরবেশহাট ডিসি সড়ক পথে পাচার হচ্ছে কাঠ ও বাঁশ

04

এলনিউজ২৪ডটকম : পার্বত্য লামা উপজেলার আজিজনগরের পূর্ব চাম্বি ও সরই ইউনিয়নের কেজুপাড়াসহ সংলগ্ন বনাঞ্চলের বনজসম্পদ উজাড় হওয়ার সংবাদ পাওয়া গেছে। পাশাপাশি লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি ইউনিয়নের পানত্রিশা এবং ফারেঙ্গা এলাকার বনজসম্পদ নিধনের অভিযোগও উঠেছে। লোহাগাড়া, পূর্ব চাম্বি ও কেজুপাড়া এলাকার কতিপয় অসাধু ব্যক্তি মিলেমিশে এসব বনাঞ্চলের বনজসম্পদ কাঠ আর বাঁশ নিধন ও পাচার করছে বলে জানায় স্থায়ী সূত্র। অভিজ্ঞ মহলের মতে বনজসম্পদ উজাড় ও পাচারের নেপথ্যে রয়েছে প্রভাবশালী মহল, যারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ম্যানেজ করে স্বার্থ হাছিল করছে।

স্থানীয় সূত্র মতে, পার্বত্য লামার পূর্ব চাম্বি ও কেজুপাড়াসহ সন্নিহিত এলাকার বনজসম্পদ কাঠ আর বাঁশ নিধন করে পাহাড়ের নিকট জমা করে থাকে। সুযোগ মতে রাতের আধারে ট্রাকভর্তি করে এসব কাঠ ও বাঁশ পাচার করে লোহাগাড়ার দরবেশহাট ডিসি সড়ক পথে। পানত্রিশা আর ফারেঙ্গা গ্রামের বনাঞ্চল হতেও কাঠ ও বাঁশ নিধন আর পাচার করা হয়।

এক সূত্র মতে, সম্প্রতি ফারেঙ্গা এলাকার কিল্লাখোলার কাছাকাছি সড়কের দু’পাশের প্রায় ১শ গাছ নিধন করা হয়েছে রাতের আধাঁরে। তাছাড়াও পানত্রিশা এলাকার বনাঞ্চলের বৃক্ষসম্পদ রাতের আধাঁরে নিধনের সময় চুনতি ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী কাঠ চোরদের ধাওয়া করার সংবাদ পাওয়া গেছে। তিনি উদ্ধার করেছেন বেশ কিছু কাটা গাছ। সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বিষয়টি স্বীকার ও নিশ্চিত করেছেন।

অপর এক সূত্র মতে, সাইফুল, মোহরম আলী, রফিক ও আমান নামে কয়েকজনসহ ১০/১২ জনের একটি দল এসব কাঠ নিধন করেছিল। এলাকার সচেতন মহলের মতে নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে বনজসম্পদ লুটেরাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া অপরিহার্য হয়ে পড়েছে। অন্যথায় সব শেষ হয়ে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*