Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | ট্যানারি মালিকরা আরো ৭২ ঘণ্টা সময় পেলেন

ট্যানারি মালিকরা আরো ৭২ ঘণ্টা সময় পেলেন

Basis20160113120044

নিউজ ডেস্ক : হাজারীবাগের অবস্থিত ২৮ ট্যানারি কারখানার মালিককে উকিল নোটিশ দিয়েছে সরকার। নোটিশ প্রাপ্তির ৭২ ঘণ্টার মধ্যে যদি তারা সাভারে ট্যানারি স্থানান্তরের প্রক্রিয়ায় শুরু না করে তাহলে গ্যাস বিদ্যুত সংযোগ বিচ্ছিন্নসহ কারখানা বন্ধ করে দেয়া হবে বলে উকিল নোটিশে বলা হয়েছে। সে হিসেবে শিল্পমন্ত্রীর ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম শেষে আরো ৭২ ঘণ্টা সময় পেলেন তারা।

বুধবার বেলা ১২ টায় যারা এখনো সাভারে কাজ শুরু করেনি তাদের প্লট কেন বাতিল করা হবে না এই মর্মে নোটিশ দিয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন (বিসিক)।

নোটিশ পাঠানোর বিষয়টি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চামড়া শিল্প নগরীর প্রকল্প পরিচালক মো. আবদুল কাইউম।

নোটিশটি পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট শহীদুল ইসলাম। তিনি বলেন, এর আগে প্রায় ২৭ বার বিসিকের পক্ষ থেকে তাদের তাগিদপত্র দেয়া হয়। এরপরও তারা কেন সরায়নি। নোটিশে তা জানতে চাওয়া হয়েছে। নোটিশ প্রাপ্তির ৭২ ঘণ্টার মধ্যে যদি তারা স্থানান্তর প্রক্রিয়ায় শুরু না করে তাহলে গ্যাস বিদ্যুত সংযোগ বিচ্ছিন্নসহ কারখানা বন্ধ করে দেয়া হবে।

বিসিক সূত্রে জানা যায়, শিল্প মালিকদের নিকট সরাসরি এবং ডাক যোগে দুই উপায়ে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। যদি কোনো কারখানা মালিককে না পাওয়া যায় তাহলে সেই প্রতিষ্ঠানের গেটে নোটিশ টানিয়ে দিয়ে আসা হবে।

এর আগে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু সকালে এক অনু্ষ্ঠানে সাংবাদিকদের জানান, হাজারীবাগের ট্যানারি কারখানা স্থানান্তরের বিষয়ে তার সরকারের সর্বোচ্চ মহলের নির্দেশনা রয়েছে। যারা এখনো স্থানান্তর করেনি তাদের বিরুদ্ধে উকিল নোটিশ যাবে এবং আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

এর আগে রোববার দুপুরে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে হাজারীবাগে অবস্থিত ট্যানারি কারখানা সাভারে স্থানান্তরের আল্টিমেটাম দেন তিনি। বুধবার দুপুর ২টায় আল্টিমেটামের সময় শেষ হয়।

যেসব প্রতিষ্ঠানকে নোটিশ প্রদান করা হয়েছে সেগুলো হলো : মেসার্স কাদের লেদার কমপ্লেক্স, ঢাকা ট্যানারি, ইউসূফ লেদার কর্পোরেশন, ইব্রাহিম লেদার, চাঁদপুর ট্যানারি, সিটি লেদার ট্যানারি, ক্যাপিটাল ট্যানারি, ইন্টান্যাশনাল ট্যানারি, ভূঁইয়া ট্যানারি, রুবি লেদার কমপ্লেক্স, হোসেন ব্রাদার্স ট্যানারি, ইউসূফ ট্যানারি, চৌধুরী লেদার অ্যান্ড কোং, হেলেনা এন্টারপ্রাইজ, আলেয়া ট্যানারি, শাহী ট্যানারি, নজরুল ট্যানারি, রোশনী কমপ্লেক্স, কমলা ট্যানারি, জিন্দাবাদ ট্যানারি, পাইওনিয়র ট্যানারি, আজিজ ট্যানারি, মুক্তি ট্যানারি, লেদার ইন্ডাস্ট্রিজ অব বাংলাদেশ, ডেল্ট্রা লেদার কমপ্লেক্স, গোন্ডেন লেদার এবং এইচ এস ট্যানারি।

বিসিক সূত্রে জানা গেছে, এসব ট্যানারি কারখানা আগামী ৭২ ঘণ্টার (তিন কার্যদিবস) মধ্যে হাজারীবাগ থেকে সাভারে চামড়া শিল্প নগরীতে ট্যানারি স্থাপনের কাজ শুরু না করলে মন্ত্রনালয়ের নির্দেশানুয়ী গ্যাস বিদ্যুত সংযোগ বিচ্ছিন্নসহ কারখানা বন্ধ করে দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, উচ্চ আদালতের নির্দেশে পরিবেশ দূষণের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে সরকার ২০০৯ সালে হাজারীবাগের চামড়া শিল্প স্থানান্তরের উদ্যোগ নেয়। এক হাজার ৭৮ কোটি টাকা ব্যয়ে সাভারে চামড়া শিল্প নগরী স্থাপন করেছে সরকার। ক্ষতিপূরণ হিসেবে ২৫০ কোটি টাকা অর্থিক সহযোগিতাও সরকারের পক্ষ থেকে করা হয়েছে।

চামড়া শিল্পকে পরিবেশবান্ধব করতে প্রয়োজনীয় কমপ্লায়েন্স নিশ্চিতে ইউরোপীয় ক্রেতাদের দিক থেকেও ওই এলাকায় ট্যানারি কারখানাগুলো স্থানান্তরের চাপ রয়েছে। এমনকি পরিবেশবান্ধব পরিকল্পিত শিল্পের শর্ত পূরণে ব্যর্থ হলে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে রফতানি নিষেধাজ্ঞারও আশঙ্কা রয়েছে। যে কারণে ট্যানারি কারখানাগুলো স্থানান্তর জরুরি বলে মনে করছে সরকার।

চামড়া শিল্প নগরীর প্রকল্প পরিচালক আবদুল কাইউম জানান, ১২১টি ট্যানারিকে সরকার ক্ষতিপূরণও দেয়া শুরু করেছে। কিন্তু ক্ষতিপূরণ নিয়েও স্থানান্তরের কাজ শুরু করেনি ২৮টি ট্যানারি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*