ব্রেকিং নিউজ
Home | উন্মুক্ত পাতা | জীবন্ত কিংবদন্তি দানবীর আলহাজ্ব মুহাম্মদ নূরুল ইসলাম

জীবন্ত কিংবদন্তি দানবীর আলহাজ্ব মুহাম্মদ নূরুল ইসলাম

222

ইঞ্জিনিয়ার মুহাম্মদ নাছির উদ্দিন : লোহাগাড়ার ক্ষণজন্মা প্রবাদ পুরুষ আলহাজ্ব মুহাম্মদ নূরুল ইসলাম। যিনি দক্ষিণ চট্টগ্রামের আপামর জনগণের কাছে গরীব দরদী ও দানবীর হিসেবে পরিচিত। তিনি দক্ষিণ চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আধুনগর ইসলামিয়া ফাযিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা। এটি লোহাগাড়ার একমাত্র মাদরাসা যাহা এলাকার কোন দান সহযোগিতা ছাড়াই পরিচালিত হয়।ইহা বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডে কয়েকবার দক্ষিণ চট্টগ্রামের শ্রেষ্ঠ মাদ্রাসা হিসেবে সুনাম অর্জন করে।

আলহাজ্ব মুহাম্মদ নূরুল ইসলাম নিজের মরহুম বাবা মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত করেছেন ইসমাঈল আন্জুমান আরা ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট।উক্ত ট্রাস্টের অনুদানে আধুনগর সহ লোহাগাড়ার বিভিন্ন এলাকায় ২৭ টি মক্তব পরিচালিত হচ্ছে। বর্তমানে আধুনগরে একটি চারতলা কলেজের নির্মাণ কাজ চলছে। এছাড়াও তিনতলা বিশিষ্ট আমিরাবাদ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ সহ লোহাগাড়ার বিভিন্ন এলাকায় তার পূর্ণ সহযোগিতায় অনেকগুলো মসজিদ মাদরাসা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

তিনি গরীব নিকটাত্মীয় স্বজনদের জন্যে দুইশতাধিক বাড়ি, বৃহত্তর লোহাগাড়ার অসহায় মানুষের দ্রুত চিকিৎসা সেবায় বিনামূল্যে এম্বুলেন্স সার্ভিসসহ বিভিন্ন সমাজসেবা ও উন্নয়নমুলক কর্মকান্ড করে চলেছেন। তার প্রতিষ্ঠিত উক্ত মাদরাসায় লিল্লাহ বোর্ডিং নামে গরীব মেধাবী ও এতিম ছাত্রদের সম্পুর্ণ ফ্রী খাওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে।

এলাকার গরীব বিধবাদের জন্যে প্রতি মাসে তার বিশেষ অনুদান রয়েছে।এছাড়াও আগামী বছর আধুনগর মহিলা মাদরাসা ও একটি মেটারনিটি হসপিটাল নির্মানের কাজ শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। তিনি দক্ষিণ চট্টগ্রামের অলিকুল শিরোমনি পীরেকামেল চুনতি হাকিমিয়া আলীয়া মাদরাসার সাবেক প্রিন্সিপ্যাল মরহুম মাও: হাবিবুর রহমানের একান্ত মুরিদ।

তিনি ঢাকাস্থ নোমান গ্রুপ অব ইন্ডাষ্ট্রিজের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান। তাঁর চার ছেলে নোমান, জাবের, জোবায়ের, ত্বালহা ও একমাত্র মেয়ে ইয়াসমিন অত্যন্ত দক্ষতার সাথে নোমান গ্রুপ ‘পরিচালনায় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে আছেন। বৃহত্তর লোহাগাড়ার সর্বশ্রেণী-পেশার মানুষের নিরন্তর দোয়া রয়েছে জনাব ইসলাম ও তাঁর পরিবারবর্গের প্রতি।তারই ফলশ্রুতিতে তাঁর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান জাতীয় পর্যায়ে স্বর্ণপদক লাভ করে বারবার। তার মতো লোহাগাড়ার শিল্পপতিরা তাদের নিজ নিজ এলাকায় গরীব ও দুঃস্থদের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলে লোহাগাড়ার অধিকাংশ এলাকা অন্তত দারিদ্র মুক্ত হবে বলে অনেকের বদ্ধমূল ধারনা।

লেখক : এসিস্টেন্ট ইঞ্জিনিয়ার, নোমান গ্র“প অব ইন্ডাষ্ট্রিজ, ঢাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*