ব্রেকিং নিউজ
Home | শীর্ষ সংবাদ | চুপ, হারামজাদা (স্মৃতিপত্র গল্প- ৪)

চুপ, হারামজাদা (স্মৃতিপত্র গল্প- ৪)

199

অধ্যাপক মুহাম্মদ আবদুল খালেক : ক’দিন ধরে শরীরটা ভালো যাচ্ছে না। তোমাকে বেশ মনে পড়ছে। শরীর ভালো থাকলে তোমাকে মনে পড়ে না। তুমি আসবে ? তোমার মনে পড়ে; একদিন তুমি ভোর সকালে এসে আমার কপালে হাত রেখেছিলে। নরম হাতের নরম তালুর স্পর্শে আমি চমকে ওঠেছিলাম। ভালোবাসা কি নরম হাতের স্পর্শ ! জানো, কেউ আমাকে একটু মায়া দ্যাখালে, আমি তার হয়ে যাই। তুমি দোয়া-দরুদ পড়ে ফু দিতে পারো। স্পর্শে আমার কলিজা কাপে। ওভাবে তাকিয়ে আছো কেনো। তোমার চোখের ওপর চোখ রাখতে পারি না। ক্যানো ? ভয় হয়। তুমি কিভাবে তাকিয়ে থাকো। বুঝেছি, আমাকে বেশি ভালোবাসো।

চট্টগ্রামের ফয়েজলেকে একা ঘুরছি। কতো শতো মানুষ। কেউ গা ঘেষে, কেউ হাত ধরে হাঁটছে। আবার পাশাপাশি কেউ গা ঘেষে বসে আছে। শিশু-কিশোর’রা খেলছে। কারো মুখে হাসি আবার কারো মুখে হতাশার ছবি। কেউ বাদাম, কেউ চটপটি আবার কেউ আইসক্রিমে জিহ্বা লেহন করছে। জোয়ান- জোয়ানিরা আইসক্রিম চুষছে। বেহায়ার দল। চুমোও খাচ্ছে, লুকিয়ে। ভালোবাস মানে কি আইসক্রিম চুষা। তোমাকে এসব বলতে গিয়ে… ধমকের সুরে তুমি বলেছিলে, ওখানে ভালোরা যায় না। তাহলে ভালো’রা ভালোবাসা করে ? অন্যরা করে না। ভালোবাসা করলে রেজাল্ট ভালো হয় না। পড়ালেখা শেষ করো, তারপর দ্যাখা যাবে। সেই কবে পড়া শেষ; ভালোবাসা হলো না। কি বলো, ভালোবাসা মরে নাকি।

চট্টগ্রাম দেবপাহাড়ে আমার টেবিল ব্যবসা (টিউশনি) ছিলো। দালানের তৃতীয় তলায় ওঠতেই জনৈক ভদ্রমহিলা বল্লো, তুমি কি বাংলায় পড়ো। জি, আপা। আমাকে চেনো? হ্যাঁ। আপনিও ত বাংলায় পড়েন। বাসায় এসো। আপা দ্যাখতে খুব সুন্দর। আপা, অন্যদিন আসবো। টেবিল ব্যবসা শেষে নামতেই একই স্থানে আপা দাঁড়িয়ে। এই যে, তুমি কি রাজনীতি করো ? ওসব বুঝি না। গরীব’র আর রাজনীতি আছে ? আচ্ছা, তুমি ভালো ছেলে। রাজনীতি করো না। কাল পড়াতে আসবে ? আসবো। বাসায় আসতে হবে। না হলে কিন্তু শাস্তি আছে। বাসায় গেলাম। হাতে বানানো নানা পদের পিঠা। জিহবার আগায় লালা, যেন ঝরে পড়বে। দু’একটা খেলাম। আমার মা শিক্ষা দিয়েছে, পরের ঘরে কম কম খাবে। বেশি খেলে নাদানের জাত ভাববে। আরো নাও। না, পারছি না। আমি কতো কষ্ট করে তোমার জন্যে…..।

এতো কম খাও। এ’জন্যে’ত তোমার চেহারার গ্লেমার চমৎকার। ভালো।

২৮ বছর পূর্বের সেই আপার ভালোবাসা আজো ভুলিনি। আমার বাবা বলতেন, ‘অ পুত ভালো মানুষের জুতা বহন করিস; অমানুষের পোয়ার মাথার পাগড়িও বহন করিস না’।

এটা আমার মনে আছে। এবং থাকবে। ভালো মানুষ’র সাথে ভালোবাসা হলে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট হয়। শরীর-মন ভালো থাকে। টাকার অপচয় হয় না। ছেলে- মেয়েরা ভালো হয়। জঙ্গী হয় না। বিনা কারণে মানুষকে হত্যা করবে না। যেমন তেমন ফেসবুকে লেখালেখি করবে না। অন্যের মান-সম্মানের ওপর আঘাত করবে না। হযরত নবীজী (সাঃ) বলেন, অপরের সম্মান নিয়ে আর ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করো না। (চলবে..)

লেখক : সম্পাদক, লোহাগাড়ানিউজ২৪ডটকম; প্রভাষক (বাংলা বিভাগ), আধুনগর ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা, লোহাগাড়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*