ব্রেকিং নিউজ
Home | অন্যান্য সংবাদ | চাকরির জন্য আপনার করণীয় বিষয়

চাকরির জন্য আপনার করণীয় বিষয়

1434382008

ছোটবেলা থেকে পড়াশোনার হাজারো বন্ধুর পথ অতিক্রম করে আপনি চাকরির জন্য যোগ্য হয়েছেন। তবে সিঁড়ির শেষ ধাপে এসে যদি পা ফসকে যায় তাহলে জীবনে চলার পথ খুব একটা মসৃণ হবে না। তাই প্রথম চাকরি করতে গেলে কয়েকটি জিনিস অবশ্যই মনে রাখতে হবে। চাকরির জন্য আপনার করণীয় বিষয় নিয়েই বিশেষ আয়োজন।

মনে রাখবেন : প্রথমত, আপনার সেই কাজ সম্পর্কে সম্পূর্ণ জ্ঞান থাকতে হবে। দ্বিতীয়ত, আপনাকে খুব দ্রুত ও ভালোভাবে কোনও জিনিস শিখতে হবে। হতেই পারে যেখানে চাকরিপ্রার্থী হিসাবে আপনি গিয়েছেন, সেই কাজ সম্পর্কে আপনার বিশেষ জ্ঞান নেই। গোটা ধারণাটাই একেবারে নতুন। মনে রাখবেন, কাজ জানা হলেও আপনার কাজের পরিবেশ, সহকর্মী ও বস কিন্তু বদলে গিয়েছে।

সময়ানুবর্তিতা : সময়ানুবর্তিতা একটি বড় গুণ। যে কাজই আপনাকে দেওয়া হোক, সময়ের মধ্যে তা শেষ করার চেষ্টা করুন।

শেখার চেষ্টা : এখনকার প্রতিযোগিতার বাজারে টিকে থাকতে গেলে প্রতিমুহূর্তে শেখার চেষ্টা করতে হবে।

মনোযোগ ও স্পষ্ট কথা : প্রতিষ্ঠানের কাছে আপনি নতুন লোক। তাই সবকিছু বুঝতে কিছুটা সময় নিন। আপনার উপরের ব্যক্তিদের কথা শুনুন ও প্রতিষ্ঠানের ভবিষ্যত চিন্তাভাবনা সম্পর্কে বোঝার চেষ্টা করুন।

বাহানা সৃষ্টি করবেন না : আপনি কেন পারেননি বা করতে পারছেন না, এসব বাহানা কোনো প্রতিষ্ঠান শুনবে না। নিজের ভুল হলে তা স্বীকার করে নিন। কীভাবে তা শুধরে নেবেন সেই দায়িত্ব আপনারই।

পদক্ষেপ সম্পর্কে সচেতন : অফিসে গিয়ে কি করছেন, কীভাবে করছেন এবং কেন করছেন, তা নিয়ে নিজের স্বচ্ছ্ব ধারণা থাকতে হবে। নিজের পদক্ষেপ সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে।

ব্যতিক্রম ভাবনা : ২-এ ২-এ চার নয়, ২২-ও হতে পারে। সবসময় অন্যরকম চিন্তা-ভাবনাকে প্রশ্রয় দিতে হবে। উন্নতি করতে গেলে এটাই প্রধান শর্ত।

বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ : কাজের জায়গায় নিজের মেজাজকে নিয়ন্ত্রণে রাখা প্রয়োজন। আপনার রাগে কারো কিছু যায় আসে না।তাই সকলের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশ বজায় রেখে কাজ হাসিল করুন।

গুছিয়ে কাজ করা : আপনি নিজের বাড়িতে কতোটা অগোছালো তা কাজের জায়গায় যেন প্রকাশ না পায়। অফিসে গুছিয়ে কাজ করা দিকে মন দিতে হবে।

কাজগুলো মনে রাখা : নতুন কাজের জায়গায় অনেক কাজ একসঙ্গে দেওয়া হতে পারে। পরপর সেগুলোকে মনে রেখে করে যেতে হবে। ভুললে চলবে না।

উপভোগ করা : নানা নিয়ম অনুসরণ করার পরে যদি নিজের কাজটিকে ভালো না বাসেন তাহলে খুব সমস্যা হবে। তাই সবচেয়ে প্রথমে নিজের কাজ সম্পর্কে ভালোবাসা তৈরি করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*