ব্রেকিং নিউজ
Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | কেন্দ্রভিত্তিক ভোটার তালিকা চেয়েছে নির্বাচন কমিশন

কেন্দ্রভিত্তিক ভোটার তালিকা চেয়েছে নির্বাচন কমিশন

UP-Election20160116124605

নিউজ ডেস্ক : ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের প্রস্তুতিস্বরূপ কেন্দ্রভিত্তিক ভোটার তালিকা চেয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

মাঠ পর্যায়ের ইসি কর্মকর্তাদের কাছে এই তালিকা চাওয়া হয়। শনিবার এসব তথ্য জানান ইসির উপ-সচিব মো. সামসুল আলম।

তিনি বলেন, পৌর নির্বাচনের মত এবারই প্রথমবারের মত দলীয়ভাবে ইউপি নির্বাচন করতে যাচ্ছে ইসি। শুধু চেয়ারম্যান পদে দলীয় নির্বাচন হলেও অন্য পদে নির্দলীয়ভাবে নির্বাচন হবে। মার্চ মাসের শেষ পর্যায়ের দুই ধাপে এ নির্বাচন হবে। তাই কেন্দ্রভিত্তিক ভোটার তালিকা সিডি আকারে আগামী ৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে কমিশনে পাঠাতে বলা হয়েছে।

এর আগে ভোটার তালিকা হালনাগাদ-২০১৫ শেষে ২ জানুয়ারি খসড়া তালিকা প্রকাশ করে ইসি। হালনাগাদ শেষে এবার নতুন ভোটার হচ্ছেন ৪৩ লাখ ৬৮ হাজার ৪৭ জন। এরা পৌরসভা নির্বাচনে ভোট দিতে না পারলেও আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন। দেশে বর্তমানে ৯ কোটি ৬২ লাখ ২৬ হাজার ৫৪২ জন ভোটার রয়েছে। তবে ৩১ জানুয়ারি চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করলে নতুন এ ভোটার সংখ্যা ১০ কোটি ছাড়াবে বলেও জানান তিনি।

দলীয়ভাবে ইউপি নির্বাচন করার প্রস্তুতি সম্পর্কে ইসি সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, আইন পরিবর্তিত হওয়ায় এবারই প্রথম স্থানীয় সরকারের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয়ভাবে নির্বাচন হবে, এছাড়া সাধারণ সদস্য (মেম্বার) ও সংরক্ষিত নারী পদে আগের মতোই নির্দলীয়ভাবে নির্বাচন হবে।

তিনি বলেন, ইউপির খসড়া বিধিমালা চূড়ান্ত হয়েছে । এখন ভেটিংয়ের জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে যাবে এবং আচরণবিধিমালা ইসির আগামী বৈঠকে চূড়ান্ত করা হবে।

ইউপির প্রথম ধাপের নির্বাচন কবে হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ২০১১ সালের মার্চ মাসের ২৯ তারিখে ৫শ’র অধিক ইউনিয়নে নির্বাচন হয়েছে। তাই আমরা যদি আইন মানি তাহলে এর মেয়াদ শেষের কমপক্ষে একদিন আগে হলেও অর্থাৎ আগামী মার্চের ২৮ তারিখের মধ্যে নির্বাচন করতে হবে এবং ফেব্রুয়ারিতে এসব ইউপির তফসিল ঘোষণা করতে হবে।

এছাড়া এরই মধ্যে এ নির্বাচনের জন্য চূড়ান্ত করা খসড়া বিধিতে প্রতীক ও চূড়ান্তু করেছে ইসি। চূড়ান্ত খসড়া বিধিমালায় ইউপি নির্বাচনে দলীয় ৪০টি প্রতীকের বাইরে স্বতন্ত্র পদের চেয়ারম্যান প্রার্থীদের জন্য ১০টি প্রতীক (আটোরিকশা, আনারস, ঘোড়া, টেবিল ফ্যান, ঢোল, টেলিফোন, চশমা, দুটি পাতা, মোটরসাইকেল, রজনীগন্ধা ফুল), সাধারণ সদস্য (মেম্বার) প্রার্থীদের জন্য ১২টি (আপেল, ক্রিকেট ব্যাট, ঘুড়ি, টিউবওয়েল, পানির পাম্প, ফুটবল, টর্চ লাইট, ভ্যান গাড়ি, বৈদ্যুতিক পাখা, মোরগ, লাটিম ও তালা) এবং নতুন ১০টি প্রতীক (হেলিকপ্টার, ক্যামেরা, বই, কলম, তালগাছ, মাইক, জিরাফ, সাঁকো, বক ও সূর্যমুখী ফুল) রাখা হয়েছে।

ইসি সূত্র জানায়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে ইতোমধ্যে ৪ হাজার ৫৫৩টি ইউনিয়ন পরিষদের তালিকা কমিশনে পাঠানো হয়েছে। তালিকা অনুযায়ী নির্বাচন উপযোগী ইউনিয়ন পরিষদগুলো যাচাই-বাছাই চলছে। গত নভেম্বরে স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন সংশোধন করে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে এবং সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত সদস্য পদে নির্দলীয় নির্বাচনের বিধান করা হয়। আগামী ৩১ জানুয়ারি চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশের পর হালনাগাদ তালিকা দিয়েই এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯-এর ২৯ (৩) ধারা অনুযায়ী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তারিখ পাঁচ বছর পূর্ণ হওয়ার আগের ১৮০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার বিধান রয়েছে। এ হিসেবে গত বছরের অক্টোবর থেকে চলতি বছরের জুনের মধ্যে সবগুলো ইউপির নির্বাচন শেষ করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

দেশে সব মিলিয়ে (১৯৭৩, ১৯৭৭, ১৯৮৩, ১৯৮৮, ১৯৯২, ১৯৯৭, ২০০৩ এবং ২০১১) আটবার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হয়েছে। বর্তমানে দেশে ৪ হাজার ৫৭১টি ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে। এসব ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের জন্য বাজেট বরাদ্দ রাখা হয়েছে প্রায় সাড়ে ৫শ’ কোটি টাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*