Home | দেশ-বিদেশের সংবাদ | কক্সবাজারে বনকর্মী-বনদস্যু বন্দুকযুদ্ধে নিহত ১ : আহত ১২

কক্সবাজারে বনকর্মী-বনদস্যু বন্দুকযুদ্ধে নিহত ১ : আহত ১২

coxsbazar-pic1-20180817181628

নিউজ ডেক্স : কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের মেহেরঘোনা রেঞ্জে সামাজিক বনায়ন এলাকায় বনকর্মী ও দখলদারদের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছেন মোস্তাক আহমদ (৩৫) নামে বনভূমি দখলকারী এক যুবক। গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছেন ৭ বনকর্মীসহ অন্তত ১২ জন।

শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। হতাহতদের কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। নিহত মোস্তাক আহমদ ঈদগাঁওর মেহেরঘোনা এলাকার মোহাম্মদের ছেলে। তার দুই ভাই শফি আলম ও আবু তাহেরও আহত হয়েছেন।

বনকর্মীদের মধ্যে আহতরা হলেন মেহেরঘোনা বনবিট কর্মকর্তা মামুনুর রশিদ খান (৫৫), ফরেস্ট গার্ড শহিদুল ইসলাম সোহাগ (৩১), মান্নান খান (৪২), আবদুর রশিদ (৪৫), মনছুর আলম (৪৮), আশরাফ আলী (৪৫) ও আবদুল মালেক (৪৫)। এছাড়াও আহত হয়েছেন ভাদিতলা এলাকার হেডম্যান আজিজুল হকসহ আরও দুই বনভিলেজার।

আহতদের মধ্যে বিট কর্মকর্তা মামুন ও বনপ্রহরী সোহাগের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে। কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা হক মাহবুব মোর্শেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের সদর রেঞ্জ কর্মকর্তা (স্পেশাল ওসি) মেহেদী হাসান জানান, উত্তর বনবিভাগের মেহেরঘোনা বনবিটের সামাজিক বনায়নের লাগোয়া অছিন্ন্যা মুরা এলাকায় মোস্তাক আহমদের পরিবার পাহাড় কেটে ঘর তৈরি করছিল। গত ১০ আগস্ট বনকর্মীরা গিয়ে তাদের পাহাড়ে ঘর করতে নিষেধ করে আসেন। কিন্তু তারা তা না মেনে ঘর তৈরি অব্যাহত রাখে। খবর পেয়ে মেহেরঘোনা বনবিট কর্মকর্তা বনকর্মী ও হেডম্যান-ভিলেজারদের নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। সেখানে পৌঁছামাত্রই কিছু বুঝে ওঠার আগেই মোস্তাক, তার ভাই শফি ও আবু তাহের অন্যান্য ২০-২৫ জন স্বজনসহ লম্বা কিরিচ, দা ও লোহার নানা সরঞ্জাম নিয়ে বনকর্মীদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়।

কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) হক মাহবুব মোর্শেদ জানান, আহত বনকর্মীদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*