Home | উন্মুক্ত পাতা | আমিরাবাদ মোটর ষ্টেশনে জনদূর্ভোগ চরমে

আমিরাবাদ মোটর ষ্টেশনে জনদূর্ভোগ চরমে

1896878_10205756875021984_3873037190836046088_n

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহা-সড়কের মধ্যবর্তি স্থানে অবস্থিত লোহাগাড়া উপজেলার আমিরাবাদ মোটর ষ্টেশন একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ স্থান। বর্তমানে ষ্টেশনটি দক্ষিণ চট্টগ্রামের একটি মিনি শহর হিসাবে পরিচিত। ষ্টেশনের চতুর্দিক হতে শত শত লোক প্রতিদিন এই ষ্টেশন দেশের বিভিন্ন স্থানে আসা যাওয়া করে থাকে। তাই ২০০ কিলোমিটার দীর্ঘ চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ও টেকনাফ সড়কে যাতায়তকারী চেয়ারকোচ, বাস, কোস্টার, কার, মাইক্রোবাস যাত্রীদের নিয়ে দক্ষিণ চট্টগ্রামের অন্যতম বিরতী স্থান হল আমিরাবাদ বাস স্টেশন। দুঃখজনক হলেও সত্য এই ষ্টেশনে যাত্রী জনসাধারনের জন্য কোন গণশৌচাগার না থাকায় সীমাহীন কষ্টের শিকার হতে হচ্ছে। চট্টগ্রাম-কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কে যাতায়াতকারী যাত্রীবাহী যানবাহনের কিছুক্ষনের জন্য বিরতী নেয় আমিরাবাদ বাস ষ্টেশন। আর এ বিরতীতেই অনেকেরই প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেওয়া স্বাভাবিক। গণশৌচাগারের অভাবে যাত্রীদের অনেকেই প্রকৃতির ডাকে বিভিন্ন হোটেলে কিংবা রাস্তার পাশে সাড়া দিতে হচ্ছে। এতে একদিকে হোটেল বয়দের বকা শুনতে হয়। অন্যদিকে এলাকার পরিবেশ দুর্গন্ধময় হয়ে যায়। আর মহিলা যাত্রীদেরকে অবর্ণনীয় ভোগান্তির শিকার হতে হয়। ষ্টেশনে উন্নয়নের কাজ করা হলেও পানি নিস্কাশনের কোন ড্রেন বা নালা তৈরী করা হয়নি। ফলে বর্ষা মৌসুমে সামান্য বৃষ্টি হলেই ষ্টেশনের ময়লা পানিতে ভরে যায় এই ষ্টেশনে বিশুদ্ধ পানিয়জলের ব্যবস্থাও অপ্রতুল। ষ্টেশনেকে ঘিরে শুধু তিন/চার হাজার লোকের বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের জন্য মাত্র ৩/৪টি নলকুপ স্থাপন করা হয়েছে। যার কারণে হাজার হাজার মানুষের
পানির চাহিদা পূরনের এই নলকুপই একমাত্র সম্বল। এক্ষেত্রে নলকুপগুলো কোন রকমে একবার নষ্ট হলে জনসাধারণের দূর্ভোগের সীমা থাকে না। এ ছাড়াও ষ্টেশনের আরও একটি সমস্যা হল যাত্রী ছাউনীর। এই ষ্টেশন দিয়ে প্রতিদিন শতশত লোক দেশের বিভিন্ন স্থানে আসা-যাওয়া করলেও এই ষ্টেশনে এখনও পর্যন্ত কোন যাত্রী ছাউনী নির্মাণ হয়নি। তাই ঐতিহ্যবাহী এই ষ্টেশনে যাত্রী ছাউনী ও গণশৌচাগার নির্মাণ করে শত শত যাত্রী ও জনসাধারেণর কষ্ট দূর করার জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেছে এলাকার সচেতন জনগণ।

লেখক : মুহাম্মদ নাজিম উদ্দিন, পদুয়া, লোহাগাড়া, চট্টগ্রাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*