Home | শীর্ষ সংবাদ | আমার শ্যামল গাঁ

আমার শ্যামল গাঁ

335

______ওয়ারদাতুল জিনান

পাখিডাকা- স্নেহমাখা আমার শ্যামল গাঁয়ে
নাড়ীর টানে মন ছুটে যায় মাতৃভূমির পানে,
প্রভাতবেলা ঘুম ভেঙে যায় আযানধ্বনি শুনে
হিমেল হাওয়া, পাখিরগান পরশ বুলায় প্রাণে।
পান্তা খেয়ে লাঙল কাঁধে কৃষক ছুটে মাঠে
জেলেরা সব মাছ ধরতে যায় নদীর জলে।
পল্লীবধূ কুঁড়ো হাতে হাস-মুরগী ডাকে,
চাষীবউ গোবর-কাদায় নিকাই উঠানটাকে
সেই উঠানে ধান মাড়িয়ে রাখবে গোলাঘরে।
সাঁঝ-সকালে বউ-ঝিয়েরা ঢেকিতে ধান ভানে
কেউবা বানায় পিঠেপুলি পাটাতে চাল পিষে,
রাখাল ছেলের বাঁশির সুরে মনটা যায়রে ভরে
ডাহুক ডাকে বিলের ধারে, শাপলা হাসে ঝিলে।
বকের সারি এদিক-সেদিক পুঁটি মাছ খুঁজে
ক্লান্ত চাষী সন্ধ্যাবেলা ফিরে কুঁড়েঘরে,
কলসি কাঁকে জল আনতে গাঁয়ের বধূ ছুটে
ধেনু চরিয়ে রাখাল ছেলে ছুটে বাড়ির পানে।
পাখ-পাখালি গোধুলিতে ফিরে আপন নীড়ে
সন্ধ্যা পরে আঁধার নামলে শেয়াল ডাকে দূরে,
মিটিমিটি জোনাক জ্বলে, ঝিঁ ঝিঁ ডাকে ঝোপে
বাঁশবাগানের মাথার ওপর রূপালী চাঁদ হাসে।
লক্ষ তারার মেলা বসে গাঁয়ের আকাশ জুড়ে
চাঁদের বুড়ি মিষ্টি হেসে আমায় যেন ডাকে,
মনটা আমার যায় অদূরে নদীর কলতানে।
পুকুরপাড়ে ভূতের ভয়ে চাইতোনা মন যেতে
বাবার আদর- মায়ের শাসন আজো আমায় টানে,
সহজ-সরল গ্রাম্য মানুষ গভীর ভালবেসে
সুখে -দুঃখে দাঁড়ায় পাশে আপনজনের বেশে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*